বিয়ে নেই, বর নেই, শাঁখা সিঁদুর থাক …

0

অপর্ণা গাঙ্গুলী:

আজকের দিনেও এঁয়োতির সাজগোজের চিহ্ন কি শুধুমাত্র স্বামীর অস্তিত্বের ওপর নির্ভর করে?

কমলিনীর জীবন থেকে যেদিন সোহাগ উজরে গিয়েছিলো সেদিনও চাঁদ উঠেছিল, ঘুম ঘুম, নিভু নিভু। কমলিনী তার বহুদিনের সোহেলী কিনা, তাই হয়তো ওর সোহাগ সিঁদুরের সমস্ত চিহ্নমাখা এতোদিনের হাসিখুশি ঢলঢলে মুখখানা দেখে অভ্যস্ত চাঁদটা প্রমাদ গুনেছিলো।

এ কী চেহারা হয়েছে কমলিনীর এক রাতের ফারাকে! ক্লান্ত, রিক্ত, জীর্ণ, শীর্ণ।

দোষটা কমলিনীরই। সে কেন স্বামীর ভালোবাসাকে তার জীবনের সমস্ত রক্তিমতার সঙ্গে মিলিয়ে নিয়ে ঘঁষে ঘঁষে তুলে ফেলেছিলো সিঁদুর, পটপট ভেঙেছিল শাঁখা পলা! আসলে দোষটা ওর নয়, দোষ ওর ভাগ্যের। না হলে কি আর শরীরের অসুস্থতার জন্যে তাড়াতাড়ি কাজ থেকে বাড়ি ফিরে, নিজের কাছে রাখা চাবি দিয়ে দরজা খুলে সরাসরি দেখে ফেলে স্বামী আর তার অনুরাগিণীকে? ওরই ঘরে, ওর খাটে, অন্তরঙ্গ? পরকীয়া, শেষকালে পরকীয়ার শিকার আমাদের কমলিনী!

কমলিনীর হৃদয় বিকল, কমলিনী হাঁফাচ্ছে, ফুঁসছে, কাঁদছে, কাঁদতে কাঁদতে ছুটে যাচ্ছে অন্য ঘরে। তারপর দরজা বন্ধ করে ওই ভাংচুড়, ওই সিঁদুর তোলাতুলি, ওই কান্নাকাটি। ওরা বুঝেছে কি বোঝেনি, তারপর থেকে প্রতিদিন, কী ভীষণ মিস করেছে ওই লাল রঙকে, সিঁদুরকে, সোহাগকে।
কমলিনী স্বভাবকবি, তাই চিরসখা চাঁদ ওকে এতো এতো এতো সোহাগ ঢেলে দিয়েছে, তবু সেই একফোঁটা সিঁদুরের লালিমা থেকে বঞ্চিত কমলিনী চারিদিকে খুঁজে ফিরেছে লাল রঙ।

এরপর এই আজ বোনের বিয়েতে লাল কাঞ্চিপুরম শাড়িটি ওর গায়ে আগুন ঢেলে দিয়েছে যেন, জাগিয়ে তুলেছে ওর ভেতরের নারীত্বের বহ্নিশিখাকে, চুটিয়ে সেজেছে চির সাজুনে কমলিনী। আর তার সঙ্গে সিঁথিতে টেনেছে সিঁদুর, পায়ে আলতা, লাল নখরঞ্জনী। সবাই অবাক, ফ্যাকাসে ক্ষয়ে যাওয়া, শেষ হয়ে যাওয়া মেয়ের কী হলো আজ?
আড়ালে আত্মীয়ারা বাঁকা হেসেছে, ওই সাদা হয়ে যাওয়া রূপটাই তাদের ভাল্লাগতো বেশি যেন! এরা তারাই যারা কমলিনীর ডিভোর্সের পর ওকে দেখে বলেছিলো, তুমি যেন কেমন বদলে গেছো, কী হয়েছে বলতো?

কমলিনী সশব্দে সেদিন বলেছিলো, সিঁদুর পরিনি গো, ডিভোর্স হয়েছে তো, তাই! তো, আজ সে বেশ মজা পাচ্ছে। চোখ গোলগোল গহনা শাড়িতে জুজুবুড়িদের দেখে। তবে আজ সে কিচ্ছুটি বলেনি, কারণ আজ নীরবতাই সপাট জবাব। শুধু রাজহংসী চলনে এগিয়ে গেছে সামনে। আজ সে নিজের জন্যে সাজে, তার জীবনে কারও অস্তিত্বের জন্য কারো ভালোবাসার সঙ্গে আজ তার সাজগোজ জড়িত নয়।

সে আজ কারও সম্পত্তি নয়।

সে এক স্বাধীন নারী।

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 239
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    239
    Shares

লেখাটি ১,৮৫৫ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.