“ভ্রম”

0

সুমিত রায়:

বাসে বসে আছি। পরের স্টপেজে এক ‘সুন্দরী’ রমণী উঠলো। সবার চোখ বাসের দরজায় গিয়ে ঠেকলো। সেখান থেকে চোখ আর ঘাড়গুলি সরতে সরতে সেই রমণী যে সিটটাতে বসলো, সেখানে এসে আটকিয়ে গেল।
এরূপ পরিস্থিতিতে আমার কার্যকলাপ একটু অন্যরকম হয়। আমি সেই রূপসীর দিকে না তাকিয়ে বরং তার চারপাশের মুখগুলিকে পর্যবেক্ষণ করতে থাকি।

কেউ হা করে তাকিয়ে দেখছে, কেউ আঁড় চোখে তাকাচ্ছে, আর ভদ্রলোকেরা তাকাচ্ছি-কিন্তু-দেখছি না গোছের দৃষ্টি নিয়ে চেয়ে আছে; কেউ আবার পাশের জনের সাথে হঠাৎ গল্প জুড়ে দিচ্ছে, আর তারই মাঝে একবার তাকিয়ে মেপে নিচ্ছে আর ভাবছে, এমন স্মার্টলি তাকিয়ে নিলাম যে কেউ কিছু বুঝতেই পারলো না! অথচ, আমি যে ততক্ষণ ওদের মুখের প্রতিটি ভঙ্গিকে তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করি, তা কেউ টেরই পায় না। আর করবো নাই বা কেন। এতোগুলি লোকের অবচেতন মনকে একসাথে নজর করার সুযোগ হাতছাড়া করা যায়?

কিন্তু আমার এই উপভোগ আজ মাঠে মারা গেল আমার পাশে বসে থাকা বন্ধুটির কনুইয়ের গুঁতোতে — “এই মালটাকে দেখেছিস!”

আমি ওর কথার কোনো উত্তর না দিয়ে জানালা দিয়ে সবুজ ধানক্ষেতের দিকে চেয়ে রইলাম। আমাকে এমন নির্লিপ্ত দেখে ও বেশ মর্মাহত হলো। কিন্তু হাল ছাড়লো না। আমার কানের কাছে এসে আবার বললো, “হেব্বি দেখতে কিন্তু, মাইরি, কী বল?” এবারও আমি নীরব।

কিন্তু ও আবার বলে উঠলো, “উফ! কী জেল্লা রে! দেখ্, দেখ্, গা দিয়ে যেন শালা আলো ঠিকরে পড়ছে!”
আমি একবার মেয়েটির দিকে তাকালাম; তারপর ওর দিকে তাকিয়ে বললাম, “আলো ঠিকরে পড়ছে! কী সব পাগলের মতো বকছিস!” এবার ও বেশ বিরক্ত হয়ে বললো, “তুই না ভিষণ আনরোমান্টিক, তোর মধ্যে কোনো ফিলিংক্স-টিলিংক্স নেই।“

আমি এবার ওর দিকে ঘুরে গিয়ে বললাম, “আমার মধ্যে না হয় ফিলিংক্স-টিলিংক্স নেই। কিন্তু তুই যেসব আলো-টালো দেখতে পাচ্ছিস, সেগুলি আর কিছুই না, ওগুলি হলো তোর অণ্ডকোষের ভ্রম।“

পরের স্টপেজে নামবো বলে দরজার কাছে এসে দাঁড়িয়ে আছি। হঠাৎ দেখি মেয়েটি আমার দিকে তাকিয়ে মিট্মিট করে হাসছে। আমিও সবে হাসতে যাবো, ঠিক তখনই মনে হলো, আমাকে দেখে নয়, আমার পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা একটি সুদর্শন ছেলের দিকে তাকিয়ে মেয়েটি হাসছে। ছেলেটি একটু আগেই বোধহয় বাসে উঠেছে। নিশ্চই ওর বয়ফ্রেন্ড হবে। খুবই থতমত খেয়ে গেলাম। স্টপেজ এসে গেল। আমি নেমে পড়লাম। ফুটপাত দিয়ে চলতে শুরু করলাম আর ভাবতে লাগলাম, ওটা কি আমার চোখের ভ্রম ছিল, নাকি ….

কল্যাণী, পশ্চিমবঙ্গ

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 166
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    166
    Shares

লেখাটি ১,৩৮০ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.