দিনবদলের খবর, মন ভালো করা খবর

সুপ্রীতি ধর:

ফেসবুক টাইমলাইনে শাম্মী এহসানের একটা ছোট ক্যাপশানসহ ছবি দেখে চোখ আটকে গেল। ছবিতে একটি মেয়ে স্কুটিতে বসে আছে। সাম্প্রতিক সময়ে আমরা ঢাকার রাস্তায় অহরহই এই চিত্রটি দেখতে দেখতে গা সওয়া গেছে। কাজেই আশ্চর্য হবার কী আছে?

না আছে। কারণ তিনি লিখেছেন,

হিমিকা।
আমার ভাগনি (ননদের মেয়ে।)

মাগুরাতেই ওর বিয়ে ঠিক হয়েছে।
এনগেজমেন্টের দিন ওর শ্বশুর আংটির সাথে এই স্কুটিটাও এনেছে, যাতে ও ভালোভাবে অফিস যেতে পারে! মুগ্ধতায় ভরে গেছে মন। মনে হচ্ছে সবাই কে ডেকে ডেকে বলি।

এতোটুকুই লেখা। কিন্তু এর ব্যাপ্তি বিশাল। অনেকক্ষণ ছবিটির দিকে তাকিয়ে বুঝতে চেষ্টা করলাম, এই তো দিনবদলের ক্ষণ এলো বলে। ভাবা যায়, একজন শ্বশুর, তিনি ছেলের হবু বউয়ের হাতে স্কুটির চাবি তুলে দিচ্ছেন! এই বাংলাদেশে? যখন চারদিক আমাদের অন্ধকারে গ্রাস করে নিচ্ছে, মৌলবাদের দেশ হয়ে উঠছে, সব পরিচিতরা মাত্র কয়েক বছরে দশ হাত কাপড়ের তলায় ঢুকে পড়ে এক দমবন্ধ করা পরিবেশের সৃষ্টি করেছে, সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়াচ্ছে খোদ রাষ্ট্রীয় মদদেই, সেখানে এমন একটি খবরে আমরা আশান্বিত হয়ে উঠি। আমরা ভাবতে চাই, হিমিকার মতোন ভাগ্য নিয়ে জন্ম নিক আরও অনেক অনেক মেয়ে। অন্যদিকে হিমিকার শ্বশুরের মতোন ‘মানুষ’ ঘরে ঘরে গড়ে উঠুক। নারীর সঞ্চরণের ক্ষেত্র সম্প্রসারিত হোক।

জয়তু হিমিকা, জয়তু নারী স্বাধীনতা।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.