ইউসুফের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী ১৩টি অভিযোগ গঠন

উইমেন চ্যাপ্টার: একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির এ কে এম ইউসুফের বিরুদ্ধে ১৩টি অভিযোগ গঠন করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২। এসব অভিযোগের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে গণহত্যা, হত্যা, নির্যাতন-নিপীড়ন, ধর্মান্তরকরণ । অভিযোগে এ কে এম ইউসুফকে রাজাকার বাহিনীর প্রতিষ্ঠাতা ও খুলনা শান্তি কমিটির প্রধান হিসেবে উল্লেখ করা হয়। বৃহস্পতিবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল অভিযোগ গঠন শেষে আগামী ৫ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রপক্ষের সূচনা বক্তব্য ও সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য করেছেন। একই সঙ্গে আজ তাঁর জামিনের আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। অভিযোগ গঠনের আদেশে বলা হয়, ইউসুফ রাজাকার বাহিনীর প্রতিষ্ঠাতা ও খুলনা শান্তি কমিটির প্রধান ছিলেন। তিনি একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকালে বাগেরহাটের ভাষাবাজার, কচুয়া, শাখারীকাঠি বাজার, রায়েন্দাবাজার, তাপালবাড়ি বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে গণহত্যা, হত্যা, নির্যাতন-নিপীড়ন, ধর্মান্তরকরণসহ নানা ধরনের অপরাধ করেছেন। তাই ট্রাইব্যুনাল তাঁর বিরুদ্ধে ১৩টি অভিযোগ গঠন করেছে। অভিযোগ গঠন শেষে ট্রাইব্যুনাল কে এম ইউসুফের কাছে তিনি দোষী না নির্দোষ জানতে চান। জবাবে ইউসুফ বলেন, ‘আমি একেবারেই নির্দোষ। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন।’ রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১ জুলাই ট্রাইব্যুনাল-১ ইউসুফের বিরুদ্ধে মামলাটি দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য ট্রাইব্যুনাল-২-এ স্থানান্তর করেন। রাষ্ট্রপক্ষ গত ৮ মে ইউসুফের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল করে তাঁকে গ্রেপ্তারের আবেদন জানায়। ১২ মে ট্রাইব্যুনাল-১ তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাঁকে গ্রেপ্তার করে। পরে ট্রাইব্যুনাল তাঁর জামিনের আবেদন খারিজ করে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.