এশিয়া কাপ নিয়ে এলো আমাদের মেয়েরা

0

সুপ্রীতি ধর:

অভিনন্দন মেয়েরা, তোমাদের অভিনন্দন। এশিয়া কাপ ক্রিকেটের টি-২০ ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে তোমরা যে শিরোপা আজ নিয়ে এসেছো, এটা শুধুমাত্র একটা শিরোপাই নয়, একটা জয়ই শুধু নয়, এটা শত বছরের পুরুষতান্ত্রিকতার মুখেও এক দারুণ চপেটাঘাত। চারদিকে যখন পুরুষতন্ত্রের জয়জয়কার, তোমরা তখন প্রমাণ করে দিয়েছো নিজেদের।

এবং এই বাংলার মেয়েরা বরাবরই দিয়ে এসেছে, তোমরাও এর ধারাবাহিকতাটা বজায় রেখেই চলেছো। তোমরা পেরেছো। তোমরা আরও পারবে। ফুটবলেও আমাদের মেয়েরা একের পর এক সাফল্য নিয়ে আসছে। লাল-সবুজ পতাকাকে তোমরাই ঊর্ধ্বে তুলে রেখেছো। তোমাদের আবারও অভিনন্দন।

উইমেন চ্যাপ্টারের পক্ষ থেকে তোমাদের প্রতি ভালবাসা, সেইসাথে আরও আরও অনেক সাফল্য তোমাদের ঝুড়িতে জমা হোক, সেই কামনাই করছি। সেইসাথে অভিনন্দন বাংলার সকল নারীদের, কারণ এই জয় আমাদের সবার।

মেয়েরা, তোমরা তো জানো না, তোমরা যখন মাঠে খেলছিলে আমরা তখন রূদ্ধশ্বাসে স্কোরবোর্ডের দিকে তাকিয়েছিলাম। পারবে কী পারবে না, একেকটি মুহূর্ত আমাদের প্রায় অবশ করে দিচ্ছিল। তোমরা হয়তো জানো না, দূর থেকে হলেও কতোটা তোমাদের সাথে ছিলাম!

ফেসবুকে অজন্তা দেবরায় লিখেছেন, ‘আমাদের ছেলেরাও এখনো পর্যন্ত এশিয়া কাপ জিততে পারেনি। সেই জায়গায় আমাদের আগ্রহের বাইরে থাকা মেয়ে ক্রিকেটাররা এশিয়া কাপ জয় করে নিয়েছে আজ।

আশা করি এশিয়া কাপ বিজয়ী বাংলার দামাল মেয়েদেরকে এখন বরণ করে নেয়া হবে বর্ণিল শোভাযাত্রার মাধ্যমে।আয়োজিত হবে সংবর্ধনা, দেয়া হবে ফ্ল্যাট-গাড়ি-নামী পুরস্কার। নারী ক্রিকেটে বিনিয়োগ করা হবে।

দেশব্যাপী পাড়া-মহল্লা-স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে মেয়েদেরকে ও ক্রিকেট তথা খেলাধুলার প্রতি আগ্রহী করতে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার সৃষ্টি করা হবে।

আশা করি, মেয়েদের এই বিজয় বাংলাদেশের মেয়েদের অনেকদূর এগিয়ে নিয়ে যাবে। সাহসে শক্তিতে বলীয়ান হয়ে এই মেয়েরা একদিন ঘরে নিয়ে আসবে বিশ্বকাপও ।

হিল্লোল দত্ত লিখেছেন, ‘নারীই পুরুষের ভবিষ্যৎ। – লুই আরাগঁ (ফরাসি কবি)। আশা করি, পুরুষ দল যে-লজ্জা আর অবমাননা এনে দিয়েছে, নারীদের হাতে তা কিছুমাত্র মুছে যাক। বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের জন্যে তিন উইকেটে ভারতের মত পরাশক্তিকে হারিয়ে এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার শুভেচ্ছা, ভালোবাসা।

জানি তারা কিছুই পাবে না ছিটেফোঁটাও যা পাওয়ার কথা ছিল দলটা পুরুষ ক্রিকেট দল হলে। তারপরেও নিজেদের প্রমাণ করল তারা। পুরুষতান্ত্রিক অচলায়তনের মুখে চুনকালি লেপে।

নারীরা আরো এগিয়ে যাক। জয় বাংলা!’

সাংবাদিক রুহুল মাহফুজ জয় লিখেছেন, ‘ইয়েস! মেয়েরা পেরেছে। ছেলেরা দুবার সুযোগ পেয়েও পারেনি। মেয়েরা প্রথমবার ফাইনালে উঠেই এশিয়ার সেরা। অভিনন্দন!

মালয়েশিয়ার মাটি বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অনেক দিয়েছে। ৯৭-এ এখানেই আজকের টাইগার দলের ফাউন্ডেশন তৈরি হয়েছিল। মেয়েদের ক্রিকেট আরেকটা ধাপে উঠল মালয়েশিয়ার মাটিতেই।’

আশা করবো, আমাদের ক্রিকেট পাগল প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভালবাসার প্রমাণ দেবেন। তোমাদের যা প্রাপ্য, তা তিনি বুঝিয়ে দেবেন কড়ায়-গণ্ডায়। তিনি তো কার্পণ্য করেন না ছেলেদের ক্রিকেটের বেলায়, এবার তাহলে তিনি প্রমাণ করুক যে, তিনি মা হিসেবে একচোখা নন। মেয়েদেরও ভালবাসেন।

মাছরাঙা টেলিভিশনে প্রচারিত একটি ভিডিও নজরে এলো এই রিপোর্টটা লিখতে লিখতেই। কতোটা বৈষম্যপূর্ণ আমাদের  সমাজ, বিশেষ করে এই ক্রিকেট জগত। লিংকটা দিলাম, আপনারাই দেখুন একই খেলা খেলে ছেলে ক্রিকেটারটা কী পায়, আর মেয়েরা কী পায়, এবং জোরেশোরে আওয়াজ তুলুন ওদের জন্য।

https://youtu.be/Um7OKQ1mpME

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 253
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    253
    Shares

লেখাটি ২৭৪ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.