তোমার কাছে লেখা খোলা চিঠি

0

হাসিন জাহান:

মানুষ নিজের অতৃপ্তিকে পূর্ণ করতে চায় তার সন্তানের মাঝে। হয়তোবা সে কারণেই দেখা যায়, স্কুলের সামনে মায়েদের ভিড়, ক্লাসে বেশি নম্বর পাওয়ার প্রতিযোগিতায় সন্তানের চেয়ে বেশি মায়ের রাতজাগা আর হাহাকার!

একটা মেয়ে শিশুর স্বপ্ন আমার বরাবরই ছিল। নিজের মেয়ে হয়নি, তাতে কী? দাদি হতে তো কোন বাঁধা নেই!
আমিও হয়তো মনের অজান্তে চাই, আমার অনাগত নাতনি বেড়ে উঠুক আমার স্বপ্নপূরণের বাহক হয়ে। আমি নিজে যা পারিনি, তা সে পারুক। আমি চাই সে বেড়ে উঠুক একজন মানুষ হিসেবে। এই ডিজিটাল যুগের জলহাওয়াতেও সে যেন স্বপ্ন দেখতে পারে, সাজতে পারে সুন্দর করে, ভুবনজয়ী হাসতে পারে। ইচ্ছেডানায় ভর করে উড়ে বেড়াতে পারে যখন যেখানে মন চায়।

তোমার কাছে লেখা আমার প্রথম খোলা চিঠি –

দরকার নেই পরীক্ষায় প্রথম হওয়ার প্রতিযোগিতায় নামার। দরকার নেই নাচ, গান বা ছবি আঁকায় বিজয়ীর পুরস্কার ‘ছিনিয়ে’ আনার।
তুমি পড়বে তোমার ভালোলাগায়। তুমি ঘুমাবে ঘড়ির এলার্ম বন্ধ করে। ইচ্ছে হলে গাইবে অথবা নূপুরে ঝংকার তুলবে – তোমার আনন্দে। ইচ্ছে হলে দূরপাল্লায় রওনা হবে পাহাড়ে, সাগরে। অথবা ভেসে উঠা কোনো নতুন চরে বা দ্বীপে।

তুমি জন্মালে কী দেবো তোমায়? অনেক ভেবেছি – সোনার চামচ, রুপোর বাটি? সোনার মালা, হাতের বালা? হীরের আংটি? নাকি চকচকে এক তাড়া নোট? নাহ্ ওসব না! দিতে চাই এমন কিছু যা আমার নিজের খুব প্রিয়। খুউব সাধারণ – তবুও অসাধারণ। আমার নূপুর।

বড় হয়ে হয়তো প্রশ্ন করবে এতোকিছু থাকতে নূপুর কেনো? কারণ এ নূপুর আমার শরীরেই যেন অংশ আজ। বোধহয় গত দু’দশকের বেশি হবে পা থেকে খুলিনি কখনও। সেই নূপুরটাই তোমার জন্য তোলা থাকলো।

এই ছোট্ট উপহারের সাথে থাকবে একটা ছোট্ট অনুরোধ: তোমাকে শিখতে হবে কারাতে-তাইকোয়ান্দো আর সাঁতার।
যেন তুমি নির্ভীকভাবে পথ চলতে পারো, তোমার ঐ নুপূর পায়ে। তুমি হবে স্বচ্ছন্দ আর আত্মবিশ্বাসী। আপন শক্তিতে। তুমি যেন নিজেকে নিজেই রক্ষা করতে পারো আর সেইসাথে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিও তোমাকে যার প্রয়োজন – হোক সে নারী অথবা পুরুষ। তুমি এগিয়ে যাও সাহসে, উদ্যমে, সম্মানে।

আমি দেখতে চাই নূপুর পরা পায়ে, দৃঢ় পদক্ষেপে তুমি কতটা পথ পেরুতে পারো!
দোয়া করি-
মেয়ে, তুমি তোমার মতো হও!

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 179
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    179
    Shares

লেখাটি ৬৫৩ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.