এ মিলন যেন কভু নাহি হয়!

0

রেজাউল রেজা:

বয়স পঁয়ত্রিশ পেরোনো কচি পুরুষ যখন সেজে গুঁজে মাথায় টোপর পরে, বা মুখে রুমাল দিয়ে শত রকমের ফুল দিয়ে গাড়ি সাজিয়ে তার ঠিক হাঁটুর বয়সী টিনএজ কোনো মেয়েকে বিয়ে করতে আসেন, তখন সে মেয়েটির মনের কী অবস্থা হয়, তা সহজেই কল্পনীয়।

মানলাম আপনি বড় চাকরি করেন, বা ব্যবসায় ফুলে ফেঁপে কলাগাছ!! তাই বলে আপনার বয়সের অর্ধেক এর চেয়ে কম বয়সী মেয়েকে বিয়ে করতেই হবে, তা কোন সংবিধানে লেখা আছে ভাই!

একজন টিনএজ বয়সের তরুণী’র কল্পনার সমস্ত রঙ এক নিমিষেই ফ্যাকাসে হয়ে যায়, যখন বাসর ঘরে ঠিক তার সামনে প্রতিয়মান তার চাচা’র বয়সী আপনাকে দেখেই!
তার হাজার রজনী প্রতীক্ষিত আজকের বাসর তখন হয়ে যায় রঙহীন। ফুলে ফুলে সাজানো এ বাসর তখন নিমিষেই হয়ে যায় এক শ্মশান ঘাট!
তার আকাশে শরৎ এর ভেসে আসা সাদা মেঘ মুহূর্তেই কাল বৈশাখী’র ভয়ংকর রূপ ধারণ করে।

আর তখন আদিম নেশায় মাতাল আপনি ঠিক বুঝে ওঠার আগেই হামলে পড়েন তার কাশফুলের মতো নরম বুকে! দু-চোখ বন্ধ করে আপনি যখন বন্য সুখে মাতাল! ঠিক সে সময়েই আপনার দু বাহুর নিচে অরক্ষিত স্ত্রী’র দু-নয়ন গঙ্গা-পদ্মার মতোই দু-পাড় ভিজিয়ে চলেছে ক্রমাগত!!

তখন তার নব্য বিবাহিত এ জীবন যেন এক নন্দিত নরক!!
তবুও তাকে হাসতে হয়! ভালও বাসতে হয়, সেটা মন থেকে হোক আর সমাজপতিদের ভয়ে হোক। হাজার বিজ্ঞজনেরা এ বিবাহ সমর্থন করলেও ব্যক্তিগতভাবে আমি এর চরম বিরোধিতা করি।

সেই মেয়ে যদি পরে তার সমবয়সী কোনো যুবকের সাথে পরকীয়া’য় মত্ত হয়, তার দায়ভার কিছুটা তার বাবা-মা এবং স্বামী’র উপরে অবশ্যই বর্তায়।

এখানেই অনেক বাবা-মা ভুল করেন, পাত্র পয়সাওয়ালা দেখলেই তাদের মাথা আর ঠিক থাকে না, কিশোরী বা সদ্য কৈশোরত্তীর্ণ মেয়েকে তিনি সহজেই তুলে দেন কোনো কোনো সময় ঠিক তাদের সমবয়সী পুরুষের হাতে!

কিছু ক্ষেত্রে মেয়ে নিজেই স্ব-উদ্যেগী হয়ে অর্থের ঘোরে তার চাচার বয়সী পুরুষের বউ সাজেন! যদিও এ মোহ বেশিদিন দীর্ঘস্থায়ী হয় না। পরে যখন ঢেউহীন সাগরে সাঁতার কেটে ক্লান্ত হয়ে পড়েন, তখন আবার নতুন উত্তাল সাগরের সন্ধানে নেমে পড়েন।

আবার অনেক প্রতিষ্ঠিত বড় ভাইকে কাছ থেকেই দেখছি– বিয়ে করার জন্য মানানসই বয়সী পাত্রী খুঁজছেন, কিন্তু ওই যে, বাবা মায়েরা তাদের মেয়েকে পনেরোতেই মধ্য বয়সী পুরুষ এর হাতে তুলে দেয়াতে তারা তাদের যোগ্য বয়সী সুন্দরী পাত্রী খুঁজে পান না, বাধ্য হয়েই তখন তারা কম বয়সী নারীতে ঝুঁকছেন।

কেবল অভিভাবকগুলো সতর্ক হলেই এই দৃষ্টিকটু বিবাহ বন্ধ করা সম্ভব। আপনার আমার নিজের অস্বাভাবিক কর্মের জন্য একজন কিশোরী’র স্বপ্নকে ধুলোয় মিশিয়ে দিতে পারি না।

রাজবাড়ী

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 95
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    95
    Shares

লেখাটি ৯১২ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.