নারীর সম্মানে প্রয়োজন স্বচ্ছ, সুন্দর মনের মানুষ

0

রাহাত মুস্তাফিজ:

একজন আধুনিক মানুষ রোম্যান্টিক হতে পারে নাও হতে পারে। কিন্তু সকল রোম্যান্টিক আধুনিক নাও হতে পারে। আধুনিক বলতে চিন্তায় আধুনিক হওয়া বুঝাতে চাছি। বায়োলজিক্যাল পার্থক্যের কারণে সাধারণত পুরুষের বুক প্রশস্ত ও পেটানো হয়, অন্যদিকে একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারীর বুক স্ফীত হয়। ওই স্ফীতির চমৎকার বাংলা শব্দ ‘স্তন’। ওই স্তন পান করে নবজাতকের পুষ্টির অভাব পূরণ হয়। মায়ের ওই স্তন পান করেই ছোট্ট শিশুটি বড় হয়ে কার্ল মার্কস-আইনস্টাইন হয়েছে আবার হিটলার-মুসোলিনী-ইয়াহিয়া-গো আজম হয়েছে।

তথাকথিত রোম্যান্টিক পুরুষের ভাবনায় উন্নত স্তনের একটা চিত্রকল্পই ধরা পড়ে। সেটা কোনমতেই শিশু খাদ্যের আধার স্তন নয়, বিপন্ন শিহরণে কেঁপে কেঁপে ওঠা কাম জাগানিয়া মখমল শয্যায় মুখ ডুবিয়ে খুঁজতে চাওয়া অমরত্বের আশ্বাস স্তন। অথচ নারীর বুকের ওই উচ্চতা আদতে মাংসপিণ্ড ছাড়া আর কিছুই নয়। ওই মাংসের উৎসবে মেতে আছে বিগত সাড়ে তিনশ বছরের রোম্যান্টিকেরা।

গল্পে, কবিতায়, উপন্যাসে, চিত্রকল্পে, গানে নারীকে হাজির করেছে রোম্যান্টিকতার বিবিধ সাজে – পোশাকে। মনের মাধুরী মিশিয়ে পুরুষ নির্মাণ করেছে নারীকে। তাঁর শরীরে কখনো চাপিয়ে দিয়েছে কাপড়ে পর কাপড়, কখনো খুলে নিয়েছে আলগোছে সে কাপড়। কখনো বলেছে, ঢোলাঢালা পোশাকে তোমাকে মানায়, কখনো আঁটসাঁটতে তৃষ্ণা মিটিয়েছে। বলেছে, বোরকায়-হিজাবে তোমারে সুন্দর লাগে, নারীর মর্যাদা রক্ষা হয়; কখনোবা ব্রা-প্যান্টি পরিয়ে পণ্য বানিয়ে মুনাফা লুটেছে।

এই কারবারে, এই ষড়যন্ত্রে নারী প্রাণভরে শ্বাস নেওয়ার স্পেস খুইয়েছে। তাঁর ভেতরেও দ্বিধা কাজ করে -একটা ছেলে খালি গায়ে প্রকাশ্য হতে পারলেও নারী হওয়ার কারণে তাঁর পক্ষে সেটা আদৌ সম্ভব নয়। অথচ, এই প্রশ্নের মীমাংসা সেই ষাটের দশকে হয়ে গেছে। একজন পুরুষ যদি প্রকাশ্যে নগ্ন হতে পারে, তাহলে একজন নারী নগ্ন হতে বাধা কোথায়? তার আগে দেখতে হবে নগ্ন হওয়া জরুরি কেনো?

চৈত্রের তীব্র তাপদাহে লোডশেডিং এর সময় একটা ছেলে নির্দ্বিধায় গায়ের শার্ট-টিশার্ট খুলে ফেলে। কিন্ত একটা মেয়ে তাঁর কামিজ খোলে না। বরং ওড়নাটা ঠিক আছে কী না সেটার দিকে মনযোগী হয়। হে পুরুষ, হে আমার ভাই, হে আমার বন্ধু ‘মাইয়া মাইনষের’ বুঝি গরম লাগে না? তাঁদের গরম লাগতে নাই? তাঁদের শরীরে বুঝি এসি ফিট করা থাকে? গরম ঠিকই লাগে। পোলাগো মতই লাগে। এইটা তুমিও জানো আমিও জানি, গলির মোড়ের পাগলটাও জানে। কিন্তু ওই যে প্রথাবদ্ধ সমাজ, তাঁর পিতৃতান্ত্রিক রক্তচক্ষু, তাঁর ধর্মাশ্রিত ভ্যালুজ, তাঁর রোম্যান্টিকগণ সবাই মিলেমিশে ঠিক করেছে নারী কী করবে, কী করবে না, কোথায় যাবে, কার সাথে যাবে, কার সাথে যাবে না, কখন যাবে, কখন যাবে না, কী পরবে, কী পরবে না … ।

সে কারণে একজন নারীকে খুব সহজে পাজলড করা সম্ভব এটা বলে যে, ‘আমি পুরুষ, আমি চাইলে টি-শার্ট খুলে সবার সামনে প্রকাশ্য হতে পারি, মেয়ে হয়ে তুমি পারবা খুলতে?’ এই যে ছেলে হয়ে পারার গর্ব এবং মেয়ে হয়ে না পারার কথা চিৎকার করে ঘোষণা করা -ভেবে দেখেছি কি এই ব্যাপারটা শারীরিক যোগ্যতা বা অযোগ্যতার বিষয় কী না? তাহলে যদি পাল্টা প্রশ্ন করি, ব্যাটা খুব তো টি-শার্ট খুলতে চাচ্ছিস, তা তুই পারবি প্যান্ট খুলে ন্যুড হয়ে পাবলিক প্লেসে একচক্কর ঘুরে আসতে? তাতো পারবি না। আর তাই তুই যে কারণে প্যান্ট খুলতে পারবি না, ওই একই কারণে মেয়েটাও তাঁর জামা খুলতে পারবে না।

একটা অসভ্য সমাজের চরম অসভ্য সন্তান বলেই প্রকাশ্যে টি-শার্ট খুলতে পারার গর্ব দেখানো সম্ভব। এবং একটা মেয়েকে জামা খুলতে না পারার সীমাবদ্ধতার কথা মনে করিয়ে দেওয়া জায়েজ। সভ্য-ভদ্র সমাজ হলে তোর মতো কীট সদৃশ ফাজিলের স্থান হতো পুলিশ কাস্টডিতে। সভ্য সমাজ হলে পোশাক পরা না পরা, খোলা না খোলার ব্যাপারে নারী-পুরুষে পার্থক্য থাকতো না। এইটা একটা সুস্থ-স্বাভাবিক এবং মানবিক সমাজ হলে এই শিক্ষাই দেওয়া হতো যে, নারী-পুরুষের শারীরবৃত্তীয় পার্থক্য ব্যতীত আর সব পার্থক্য, ভেদাভেদ, বৈষম্য সমাজ সৃষ্ট।

এই শিক্ষা সেক্স ও জেন্ডারের।  আমাদের প্রাথমিক শিক্ষা থেকে উচ্চতর শিক্ষা কোথাও এই ব্যাপারগুলাকে সাধারণ শিক্ষা হিসেবে গ্রহণ করে শিক্ষা কারিকুলামে নেওয়া হয়নি। হয়নি বলেই নারী আমাদের চোখে মেয়েমানুষ, মাল হিসেবে ধরা দেয়। আমাদের রোম্যান্টিক গান-কবিতায় নারী মানে ফুল-পাখি-লতা-পাতা-নদী-চাঁদ ইত্যাদি। আমাদের হাজারে হাজারে, লাখে লাখে রোম্যান্টিক দরকার নাই, খুব বেশি করে দরকার আধুনিক মানুষ। স্বচ্ছ চিন্তা-ভাবনার সুন্দর মনের মানুষ।

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 374
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    374
    Shares

লেখাটি ৫৫৬ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.