অপু বিশ্বাস এবং একজন ভণ্ড শাকিব বৃত্তান্ত

0

আফরোজা চৈতী:

বাংলায় একটা প্রবাদ আছে
”যারে দেখতে নারি তার চলন বাঁকা!”
শাকিব খান নামের একজন লুইচ্চা অপু বিশ্বাসরে বিয়া কইরা বানাইলো অপু ইসলাম খান। নয় বছর ভালোবাসার দোহাই দিয়া, ক্যারিয়ারের ধুঁয়া তুইলা এই বিয়ার সামাজিক স্বীকৃতি এই লুইচ্চা দেয় নাই!
তারপর অপু ইসলাম খান যখন নাকের পানি চোখের পানি এক কইরা টিভির সামনে ‘আমি অবলা আমার কী হবে’ বইলা হেইলা পড়লেন. তখন শাকিব বাবাজীর টনক নড়লো! আর এখন তিনি তার ডিভোর্স এর কারণ দর্শাইছেন,

১। অপু বিশ্বাস থুড়ি অপু ইসলাম খান ইসলামী শরিয়ত মতে চলেন নাই।
২। তিনি ছেলেবন্ধু নিয়া ঘুরতে গেছিলেন।

কী হাস্যকর কারণ! কেন হাস্যকর সেটা বইলা নিই।

যেই লুইচ্চা ইসলামী ধর্মমতে বিয়া করা বৌরে টানা নয় বছর সামাজিক স্বীকৃতি দেয় নাই, সে কেমনে স্ত্রীর শরিয়াহ্ ও ধর্ম অনুযায়ী চলা নিয়া অভিযোগ তোলেন? ইসলামে কোথায় আছে যে, বিয়া করা বৌ এর সামাজিক স্বীকৃতি না দিলেও চলে? সন্তানের মায়ের প্রতি হক আদায় মানে খোরপোষ নয়, বরং সুখে-দুঃখে সবসময় তার পাশে থাকা। তার বিবির সম্মান রক্ষা করা। এইখানে আমাদের শাকিব খান কী সম্মানটা দিসেন তার বিবিরে? বরং টেনে হিঁচড়ে পথে নামাইছে তার ঘরের সম্মানরে!

আর অপু ইসলাম খান ওরফে অপু বিশ্বাস!
প্রেমের জোয়ারে, ভালোবাসার টানে নিজ ধর্ম, ক্যারিয়ার সব যার জন্য বিসর্জন দিলেন, সেই আজ তাকে চরিত্রহীন বৌ এর তকমা লাগিয়ে ছেড়ে দিলেন? চরিত্রহীন আসলে কে? অপু বিশ্বাস না শাকিব খান? যে আজ অপু, কাল বুবলী করে বেড়াচ্ছে! পোলা জন্ম দিয়াও সেইডা গোপন রাখছে! একই চলচ্চিত্র অঙ্গনের অপুও একজন গুণী শিল্পী। কই তার পক্ষে পাশে আজ পর্যন্ত একজন শিল্পী বা অগ্রজকেও দাঁড়াইতে শুনলাম না। তার গুণগ্রাহী একজন অগ্রজও তো তারে কইলো না, বইনগো আমরা আছি তোমার পাশে!

এ কেমন সংস্কৃতি চর্চা? যেখানে শাকিব অন্যায় করেও পার পেয়ে যাবে, আর অপুকে মাশুল গুনতে হবে চোখের পানিতে? কই গেলেন নারীবান্ধব চলচ্চিত্র নির্মাতা আফা ভাইরা? নাকি অপুর গুষ্ঠি উদ্ধার আর শাপ শাপান্ত কইরাই দায়িত্ব শ্যাষ! হে হে হে আফনেরা পারেনও! এই মিডিয়া হা হইয়া আছে অপুর যাবতীয় টোনার খবর নিতে। তারপর রসাই রসাই সেই সংবাদ পরিবেশিত হবে!!

মায়ার শইলগো আমার!মায়া হয়গো এই মাইয়াডার জন্য। অপু হয়তো শেষ পর্যন্ত এই লুচ্চা শাকিবের সাথেই তার সংসার করার শেষ চেষ্টা করছিলো। তারে আমি বোকা কমু না, বরং মন থেইকা কই, তার ভালোবাসাটা নিখাদ আছিলো, সৎ আছিলো। সে তার সর্বস্ব দিয়াই তার ছেলে স্বামী নিয়া সুখে সংসারটা করতে চাইছিলো!

হায়রে অপু ইসলাম খান! ধর্ম ত্যাগেও শেষ রক্ষা হইলো না! আফনের সব চেষ্টা, চোখের জল ব্যর্থ! কী করা উচিৎ অহন আপনের? কোনায় বইস্যা থাইকা হেঁচকি তুইলা কাঁদবেন? শাকিব এর প্রেমবিরহে পাগলিনী হইয়া রাস্তায় ঘুইরা বেড়াইবেন?নাকি ঘুইরা কইষা একটা জুতার বাড়ি দিবেন এই লুইচ্চাটারে? আপনি চাইলেই পারেন আপনার প্রতি হওয়া প্রতিটা অন্যায় এর উচিৎ জবাব দিতে।

শুধুই সংসার আর সন্তানের মোহের বেড়াজালে এই জীবনটা নষ্ট করবেন না। আপনাকে প্রেমের ফাঁদে ভালোবাসার জালে আটকে ধর্মান্তরিত করেছে এই লুইচ্চাটা, এমনকি আপনার সন্তানের পিতৃত্বও সে গোপন করছিলো দীর্ঘদিন! কেন মানহানি আর নারী নির্যাতন আইনে মামলা করবেন না আপনি? কেন মেরুদণ্ড সোজা করে আত্মসম্মান নিয়ে মাথা উঁচু করে বাঁচবেন না? কোনও অপরাধ তো করেননি!ভালোই তো বেসেছিলেন! ভালোবাসা তো আর পাপ নয়। ভালোবাসার চেয়ে সুন্দর, পবিত্র আর কী হইতে পারে?

ভালো তো আপনার পুত্ররেও বাসেন। কী শিখবে সে তার বাবার কাছে? বাবা হওয়ার কোন যোগ্যতা রাখেন শাকিব খান থুড়ি লুইচ্চা? সন্তানের জন্য সবচেয়ে সুন্দর যে উপহার তা হইলো সন্তানের মায়ের প্রতি ভালোবাসা। শাকিব তো সেই উপহারটাই আপনার ছেলেরে দেয় নাই! শাকিব খান যদি ব্লকব্লাস্টার হিরো তবে আপনিও সুপার হিরোইন!কিসে কম আপনে?৭০টা সিনেমার হিরোইন ছিলেন আপনি! আপনি যদি আপনেরে সম্মান না দেন তাইলে আমরা কাইন্দা মইরা গ্যালেও কেউ সম্মান দেবার পারবো না আপনারে?

বইনগো, আমি আপনারে গাইল পারবো না। আমি সাহস দিবার চাই আপনারে য্যান এই সমাজে একজন অপু বিশ্বাস তার ছেলে আব্রাম খান জয়রে নিয়া নিজ যোগ্যতায় মাথা উঁচু কইরা চলবার পারে। এই সমাজ শাকিব খানগো একলার জমিদারী না, এই সমাজ অপু বিশ্বাসগোরও। আর তাই কই, জানি একলা থাকনের যন্ত্রণা কষ্ট ব্যাক আছে, কিন্তু সেইটা কি নারীত্বের অসম্মান?
আর অপমানের চেয়েও বড়গো বইন? একবার ঘুইরা দাঁড়ান, প্রতিবাদ করেন, প্রতিরোধ করেন! জয় তো আপনার সাথেই আছে, কে হারাবে আপনারে?

আর আপনার এই ঘুরে দাঁড়ানির শিক্ষাটাই হয়তো অনুপ্রেরণা দিবো এই রকম প্রতারিত হওয়া প্রেমের ফাঁদে পড়ে সর্বস্ব হারাই ফেলা মেয়েদের নতুন করে বাঁচতে, খোলা হাওয়ায় নিঃশ্বাস নিয়ে তারাও কইতে পারে
”বাঁচো, তোমার আনন্দে, তোমার খুশীতে।”

যে কাপুরুষগুলো দায়িত্বের ভয়ে পলায় যায়, তার জন্য কেন সময় এর অপচয়? চোখের জলের অপচয়? একটাই তো জীবন, এতো অপচয় করলে চলে নাকি?

আমার কাছে আমি যে বড্ড দামী! আপনার কাছেও আপনে অনেক দামী! তৈরি করেন আপনের নয়া ইতিহাস। শুভকামনা সকল অপু বিশ্বাসগো জন্য যারা শাকিব লুইচ্চাদের ভালোবাসার খ্যাতা পুইড়া নিজেদের জন্য গড়েন নতুন ইতিহাস।

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 1.5K
  •  
  •  
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1.5K
    Shares

লেখাটি ৮,১৬৩ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.