মা’দের কাছে প্রশ্ন, কী শেখাচ্ছেন সন্তানদের?

0

মুনিয়া পাখী:

ছোট খালাতো বোনটা আমেরিকা চলে যাবে চিরদিনের জন্য। খুব মন খারাপ সবার। যাবার আগের দিন আমাদের বাসায় থাকতে এলো। রাত ১১ টা বাজে! রাস্তায় কন্সট্রাকশনের কাজ চলছে বলে একটা গাড়ি ঘোড়াও নেই। একদম নীরব রাস্তাটা। লোকজনও নেই! একদম মেইন রাস্তায় আমাদের বাসাটা।

তিন বোন আমরা বারান্দায় এলাম। মন খারাপ দূর করার জন্য আমরা ফাজলামি শুরু করলাম। হাসাহাসি করে পরিবেশটা হাল্কা করতে চাইলাম। অর্থহীন হাসাহাসি, যেগুলো আর কয়েক ঘন্টা পরই অনেক অর্থবহ মনে হবে। চলে যাবে সেই কত দূরে!

রাস্তার ওপাশে কিছু ছেলে মই নিয়ে কোচিং সেন্টারের বিজ্ঞাপন লাগাচ্ছিল দেয়ালে। আমাদের হাসাহাসি হয়তো শোনা যাচ্ছিল নীরব নিঝুম রাস্তায়! তাদের কানে চলে গেল সেই শব্দ। একটু বাদে দেখলাম তিনজন মইটা নিয়ে আসছে। রাস্তার একদম মাঝখানে। আমি বুঝতে পারছিলাম না কী হচ্ছে! মই মাঝখানে আনছে কেন? ঠিক আমাদের বিল্ডিংটার সামনে?

ঠিক আমাদের সামনে এনে দুইজন ছেলে নিচে খাড়া করে ধরলো মইটা! রাস্তার আলোয় সব স্পষ্ট দেখা যায়! তৃতীয়জন মইটা ধরে উঠতে নিল।

উঠার ঠিক আগে সে তার প্যান্টের জিপার টেনে নামাতে লাগল ধীরে ধীরে, তারপর আস্তে আস্তে উঠা শুরু করলো। রাস্তার ফকফকে আলোতে আমি সব দেখতে পেলাম। মুহুর্তের জন্য আমার মাথাটা ফাঁকা হয়ে গেল! ছোট দুইজন তখনো ঠিক বুঝে উঠতে পারেনি কী হতে যাচ্ছে! সেকেন্ডের মাঝে আমি সম্বিৎ ফিরে পেলাম! দুইজনকে দুই হাতে সজোরে ধাক্কা দিয়ে বের করে দিলাম বারান্দা থেকে!

ঘটনার আকস্মিকতায় আমার গা রাগে কাঁপছিল অল্প অল্প করে! আজকে যদি এটা আমার সেই সভ্য সমাজ হতো, আমি সাথে সাথে বের হয়ে জানোয়ারের অণ্ডকোষে লাথি মেরে অজ্ঞান করে রাস্তায় ফেলে রাখতাম। হ্যাঁ! শুনতে খুব খারাপ লাগছে? লঘু পাপে গুরু দণ্ড মনে হচ্ছে?

দু:খিত, কিন্ত ভদ্র ভাষা আসলো না মুখে! ভদ্র মানুষের সাথে ভদ্র ব্যবহার যায়! আপনার যদি মনে হয়, প্যান্টের জিপার খুলে ছেলেটা খুব “লঘু “পাপ করে ফেলছে, তাহলে আমারও মনে হয় “গুরু” পাপ হয়ে যেত তাকে অজ্ঞান করে ফেললে! যেমনি করে রেপ ভিক্টিমকে ধর্ষকের সাথে বিয়ে দিলে যেমন লঘু পাপে গুরুদণ্ড দেয়া হয়! রেপিস্ট তো চাইলেই ইজিলি আরেকজনকে বিয়া করতে পারতো! রেপ করার জন্য ওই রেপ হওয়া মেয়েটাকেই বিয়ে করতে হলো? লঘু পাপে গুরু দন্ড হল না রেপিস্টটার জন্য?

চলে যাবার আগের দিনটাও কী দেখতে হলো বোনটাকে!

অসভ্য ইতরের দেশে নিজ বাসার বারান্দায় এই রকম হবে, এই আইডিয়া নতুন, না?? কারা কারা এপ্লাই করতে চান এই আইডিয়া?

সলিউশান কী আসলে এগুলির?

মেয়েদের সেল্ফ ডিফেন্স আর স্কুলে ছেলে মেয়েদের পারস্পরিক সম্মান শিক্ষা দেয়াটা আজকাল সময়ের প্রয়োজন! আজকে আমার একটা শিশু মেয়ে থাকলে অবশ্যই তাকে সেল্ফ ডিফেন্স শিখাতাম, ছেলে শিশুটাকেও শিখাতাম সেটা, সাথে আরও ছোটকাল থেকেই সম্মান জিনিসটা শিখাতাম।

ওগুলো না হয় রাস্তার বস্তি ছেলে ছিল, ভালো বংশের ছেলেরাও কি খুব উদার দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বড় হচ্ছে? মায়েরা কি এগুলো ঘরে থেকেই শিক্ষা দেন? মায়েরা কি আজকাল মেয়েদের সেল্ফ ডিফেন্সের ব্যাপারটাকে উতসাহিত করেন? নাকি বলেন, ঝামেলা না করে চুপচাপ পাশ কাটিয়ে যাও? এলাকার বখাটেদের এড়িয়ে যেতে বলার পিছনে না হয় যুক্তি দিলেন, রাস্তা ঘাটে অপরিচিত মানুষ এমন করলে মেয়েকে কী বলেন মায়েরা?? মায়েরাই কি সেই সনাতন লেভেলের চিন্তা থেকে বের হতে পেরেছেন? তারা কি মেয়ে সন্তানকে কাছে টেনে হেসে বলেন- আমরা যদি না জাগি মা কেমনে সকাল হবে?

ছেলে সন্তানকে কীভাবে বড় করছেন মায়েরা? খালি কোচিং স্কুল কলেজে নিয়ে যেতে যেতে কি নৈতিক শিক্ষা দিতে ভুলে যাচ্ছেন? শেখাচ্ছেন একটা মেয়েকে কীভাবে ট্রিট করতে হয়? কিভাবে মানুষকে সম্মান দিয়ে চলতে হয়? শিখাচ্ছেন যে ছেলে এবং মেয়ে দুটি খুঁটির মতো? সমাজ এবং পরিবার এভাবেই তৈরি হয় বাবা? কাউকে অসম্মান করে দেখলে ভালো মানুষ হবে না? সমাজেও না, পরিবারেও না?

ছেলেমেয়েদের প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার, মেরি কুরি, ঝাঁসির রানী লক্ষ্মীবাঈ, জোয়ান অফ আর্ক, মার্গারেট থেচার, রানী ভিক্টোরিয়া, ক্যাথেরিন দ্যা গ্রেট, লেডি বায়রন, জে কে রাউলিং, ফ্রিদা কাহলো, মারিসা মেয়ার, শেরিল স্যান্ডবার্গ এর গল্প বলেন? তাদের বই কিনে দেন? আমাদের এভারেস্ট জয়ী নিশাত, ওয়াসফিয়া বা নভেরা কিংবা সেলিনা পারভীনের কথা বলেন? গীতি আরা সাফিয়া, তাহমিমা আনাম, তাদের দেখিয়ে বলেন- দেখ!এরা কী ম্যাটেরিয়াল দিয়ে তৈরি! ছেলে এবং মেয়ে দুইজনের দৃষ্টিভঙ্গি ছোটবেলা থেকেই কি মা চেঞ্জ করে দিতে পারেন না?

আজকালকার মায়েরা কি শেখান বাচ্চাদের?? জানার বড় ইচ্ছা! এ প্লাস পেতে হয় কীভাবে, খালি এটাই? এটা ছাড়া আর কিছু কি আদৌ শেখান তারা? নাকি হিন্দি সিরিয়াল দেখতে গিয়ে কিছু শেখানোর সময় পান না?

নেপোলিয়ন বলেছিলেন না, একজন মা একটা ভালো জাতি দিতে পারেন!

আমি সেই মায়ের জন্য অপেক্ষা করি! সেই মায়েরা না জাগলে এই পাশবিক সমাজ জাগবে না! অনেক ঘুমিয়েছো মা, এবার জেগে ওঠো…

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 598
  •  
  •  
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    603
    Shares

লেখাটি ৫,৪৯৯ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.