গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করুন: প্রধানমন্ত্রী

PMউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর কোন অসাংবিধানিক সরকার যাতে ক্ষমতায় আসতে না পারে সে লক্ষ্যে মনোযোগ দিয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন জেলা প্রশাসকদের। (খবর: বাসস)

তিনি বলেন, অতীতে দেশের জনগণ সামরিক সরকার তথা সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে দমন-পীড়নের শিকার হয়েছে। কাজেই ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের সরকার ক্ষমতা দখল করতে না পারে সে ব্যাপারে আপনাদেরকে সতর্ক থাকতে হবে।

তেজগাঁওস্থ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আজ তিন দিনব্যাপী “জেলা প্রশাসক সম্মেলন-২০১৩” উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সম্মেলনের উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রশাসন বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম ও মন্ত্রিপরিষদ সচিব মুশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনারদের পক্ষে ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার এ এন শামসুদ্দিন আজাদ চৌধুরী, কুমিল্লার জেলা প্রশাসক মো. তোফাজ্জল হোসেন, যশোরের জেলা প্রশাসক মো. মোস্তাফিজুর রহমান ও ভোলার জেলা প্রশাসক খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান।

আরও উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রি, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, সংশ্লিষ্ট সচিব, বিভাগীয় কমিশনার ও সরকারের পদস্থ কর্মকর্তারা।

নিজ বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচনের প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন। তিনি বলেন, গণতান্ত্রিক দেশগুলোর মতই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই লক্ষ্যে দেশে প্রথমবারের মতো আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে একটি স্বাধীন, নিরপেক্ষ ও শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে।

বর্তমান সরকারের আমলে প্রায় ৬ হাজার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জাতীয় সংসদের উপনির্বাচনসহ প্রায় ৬ হাজার নির্বাচন বর্তমান সরকারের মেয়াদে অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ায় কেউ কোনো প্রশ্ন উত্থাপন করতে পারেনি।’

বর্তমানে ধর্মীয় উন্মাদনা ব্যাপারে জেলা প্রশাসকদের সতর্ক থাকার কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদেরকে আহ্বান জানাবো আপনারা দুষ্টকাজে মাদ্রাসার শিশুদের যাতে ব্যবহার করতে না পারে, সে ব্যাপারে ব্যাপক গণসচেতনতা সৃষ্টি করবেন।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী জেলা প্রশাসকদের সেবার মনোভাব নিয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে ১৭-দফা নির্দেশনাও দেন।

প্রধানমন্ত্রী রমজান মাসে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি রোধে সচেষ্ট থাকতে বলেন জেলা প্রশাসকদের। এ ধরণের অপতৎপরতা ব্যাহত করার আহ্বান জানান তিনি। চাহিদার ওপর নিয়মিত মনিটরিং, স্টক ও সরবরাহ করার তাগিদও দেন।

তিনি সকল পর্যায়ে নারী শিক্ষা হার বৃদ্ধি, ঝরে পড়া রোধ, ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মূল ধারায় ফিরিয়ে আনা এবং প্রত্যন্ত অঞ্চলে গুণগত শিক্ষা বিস্তার ও মানোন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালনের জন্য ডিসিদের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রগানমন্ত্রী ভূমি প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা ও স্বচ্ছতা বৃদ্ধি করে সরকারি জমি রক্ষায় সতর্ক নজরদারি এবং কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধিতে সার, বীজ, বিদ্যুৎ ও তেলের সরবরাহ নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসকদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বানও জানান।

তিনি দুর্যোগ ও বিপর্যয় প্রশমনে দুর্যোগ সংক্রান্ত স্থায়ী নির্দেশাবলী ‘স্ট্যান্ডিং অর্ডারস অন ডিজাস্টার-২০১০’ অনুসারে সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ নেয়া এবং সাধারণ মানুষকে সহজে সুবিচার প্রদান ও আদালতে মামলার জট কমাতে গ্রাম আদালতকে কার্যকর করারও পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের মেয়াদে এটি পঞ্চম জেলা প্রশাসক সম্মেলন। এই সম্মেলনের মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ে সরকারি নীতি ও কর্মসূচি বাস্তবায়নে সমস্যা সমূহের সমাধান বের হয়ে আসবে।

বর্তমান সরকার নির্বাচনী অঙ্গীকার পূরণে কাজ করে যাচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘গত সাড়ে চার বছরে অনেক ক্ষেত্রেই তাঁর সরকার অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে। আগামী নির্বাচনের আগেই তাঁর সরকারের অবশিষ্ট অঙ্গীকারসমূহও বাস্তবায়ন সম্ভব হবে।’

বর্তমান সরকার কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, অর্থনৈতিক, বিদ্যুৎ, দারিদ্র্য বিমোচন, আইসিটি, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী ও নারীর ক্ষমতায়নে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছে বলেও এসময় তিনি উল্লেখ করেন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.