রাষ্ট্রপক্ষের আপিল সংবিধানসম্মত

amicusউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত কাদের মোল্লার সাজা নিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের বৈধতার প্রশ্নে আদালতের এমিকাস কিউরিদের মতামত তুলে ধরার প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে।

সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ এই আপিলের ক্ষেত্রে আইনী ব্যাখ্যা চেয়ে সিনিয়র সাতজন আইনজীবীকে এমিকাস কিউরি নিয়োগ করেছিলো। যাদের মধ্যে দুইজন রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের বিরোধিতা করেছেন। তাদের মতে, কাদের মোল্লার মামলায় রায়ের পর আইন সংশোধন করে ভূতাপেক্ষ কার্যকারিতা দেওয়া বৈধ নয়।
বাকী পাঁচজনের মতে রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের ব্যাপারটি সংবিধানসম্মত।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি ট্রাইব্যুনালে কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ঘোষণার পর তার ফাঁসির দাবিতে গণজাগরণ মঞ্চের নেতৃত্বে সারাদেশে গণআন্দোলন শুরু হয়। এসময় চাপের মুখে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় অপর্যাপ্ত সাজার অভিযোগ এনে রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের বিধান করে আইনে সংশোধন আনা হয়।

বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সর্বশেষ এমিকাস কিউরি সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল হাসান আরিফ তার মতামতে আইন সংশোধনের আগের বিষয় আইনের আওতায় আনার বিরোধিতা করেছেন। তিনি বলেন, সংশোধনী অবশ্যই বৈধ । কিন্তু এটি শুধু মি: মোল্লার রায় বাদ দিয়ে অন্যদের রায়ের ক্ষেত্রে কার্যকর করতে আইনগত কোন সমস্যা নেই‌।”

এছাড়াও কাদের মোল্লার রায়ে রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের সুযোগের বিরোধিতা করেছেন আরেক আইনজীবী টি এইচ খান।
রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের পক্ষে মতামত দেন রফিকুল হক, আমীর উল ইসলাম, মাহমুদুল ইসলাম, আজমালুল হোসেন এবং রোকন উদ্দিন মাহমুদ।

ব্যারিস্টার আমির উল ইসলাম বলেন, বিচারের ক্ষেত্রে স্বপক্ষের সমান অধিকারের কথা সংবিধানেই বলা আছে। সুতরাং এক্ষেত্রে কোন ভিন্ন ব্যাখ্যার সুযোগ নেই। সরকারকে এই সুযোগ দিয়ে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তির অধিকার ক্ষুন্ন করা হয়নি বলেও মনে করেন তিনি।

জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার রায়ের বিরুদ্ধে তার পক্ষ থেকেও আপিল রয়েছে। সরকারের আপিলের বৈধতা প্রসঙ্গে আইনী ব্যাখ্যা নেওয়া বা সিনিয়র আইনজীবীদের মতামত নেওয়া আদালত শেষ করেছে।

এদিকে দুইপক্ষেরই আপিলের শুনানি মঙ্গলবার শেষ হয়েছে। রায় যেকোনদিন হতে পারে বলে জানিয়েছে আদালত।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.