সন্তান জন্মের পর কি দাম্পত্য জীবনে ভালবাসা কমে যায়?

0

রামিছা পারভীন প্রধান:

অনেকের মনের মধ্যে প্রশ্ন থাকে সন্তান হওয়ার পর কি দাম্পত্য জীবনে ভালোবাসা কমে যায়? আসলে এটা একটা জটিল ভাবনা। বাচ্চা হওয়ার পর ভালবাসাগুলো কেবল একটু ভাগ হয়ে যায়। আগে ছিলেন দুজন, এখন আপনারা তিনজন। আগে একজনকে নিয়ে আপনার নিজের একটা জগৎ ছিল, সেখানে একজনই বিরাজ করতো, আর একজনই ছিল আপনার রাজ্যের রাজা বা রানী। আর যাকে পৃথিবীতে নিয়ে আসলেন, সে আপনাদেরই একটা অংশ, সে আপনাদের মধ্যে কেবল হয়ে উঠে মধ্যমণি মাত্র।

তাকে ঘিরে আপনাদের স্বপ্নগুলোর হয়তো একটু পরিবর্তন হয় মাত্র। এক্ষেত্রে স্বামী-স্ত্রী দুজনেরই মনে হতে পারে তাদের মধ্যে মনে হয় ভালোবাসা কমে যাচ্ছে । এক্ষেত্রে মেয়েরা একটু বেশি ভাবে। মা হওয়ার পর তারা শারীরিকভাবে অনেক দুর্বল থাকে। সেসময় তাঁরা তাদের স্বামীদের কাছ থেকে যে সহযোগিতা বা মানসিক সাপোর্ট পাওয়া দরকার তা না পেলে স্বাভাবিকভাবে তারা অনেকটাই মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। আপনার চারপাশের অনেক মানুষ তাকে সহযোগিতা করলেও আপনার মনোযোগের প্রতি তার দৃষ্টি থাকে বেশি। আপনার প্রতি তার প্রত্যাশাটা থাকে বেশি।

একজন বাবার যখন সন্তানের প্রতি অনেক ভালবাসা থাকে, তখন একজন মায়ের আনন্দের সীমা থাকে না। একজন বাবা তার নিজ সন্তানকে ভালবাসবে এটাই স্বাভাবিক। তেমনি একজন সদ্য/নতুন মাকে অবহেলা করাও অস্বাভাবিক। সন্তানের জায়গায় সন্তান, স্ত্রীর জায়গায় স্ত্রী। অনেক পুরুষ আছে, সন্তান হওয়ার পর সন্তানকে নিয়ে ব্যস্ত থাকে, সন্তানের মায়ের দিকে কোনো খেয়াল রাখে না, একজন মা যখন মা হয়, সন্তানের সাথে সাথে তার মা হিসেবে নতুন জন্ম হয়, তাই দায়িত্বটা তার প্রতি বেশি রাখতে হয়।
আর এ অবস্থাতেই অবহেলাটা কেন যেন বেশি শুরু হয়, যা পরবর্তীতে একটু একটু করে অনেক তিক্ততা জমা হয় জীবনে। সন্তান হওয়ার পর সন্তান অসুস্থ থাকলে মাকে সারারাত জাগতে হয়। আর এক্ষেত্রে আপনাকে তার পাশে দরকার।
মনে রাখবেন তিনি আপনার সন্তানের মা, তাকে ভালো রাখার দায়িত্বটুকু আপনার। আপনার স্ত্রী সুস্থ থাকলে আপনার সন্তানও সুস্থ থাকবে।
আমাদের বেশিরভাগ সংসার যখন পুরুষের উপর নির্ভর করতে হয়, তাই সন্তান আসার পর খরচের মাত্রাটা বেড়ে যায় বলে হয়ত সন্তানের কথা ভেবে একটু চিন্তিত থাকে। কিন্তু সে কথাটা যদি বুঝিয়ে বলতে পারেন আপনার স্ত্রীকে, তাহলে দেখবেন তার কাছ থেকে আপনি বেশি ভরসাটুকু পাচ্ছেন।

অনেক পুরুষ আবার ভাবে বউ তাকে আগের মতো গুরুত্ব দিচ্ছে না, ‍সারাক্ষণ ‍সন্তান নিয়ে ব্যস্ত থাকে, ফলে দাম্পত্য জীবনে একটা ভুল বুঝাবুঝি তৈরি হয়। মা হওয়ার পর মায়ের কাজ হাজার গুণ বেড়ে যায়। বাচ্চা নার্সিং করা একটি কঠিন কাজ। তাই ভুল না বুঝে নিজের কাজটা নিজে করুন, পারলে একটু সাহয্য করুন, দেখবেন তেমন কিছু মনে হবে না।

আবার এমনও হয় সন্তান হওয়ার পর ভাঙ্গা ভাঙ্গা সর্ম্পকটা একটু একটু করে মজবুত হতে থাকে ।
সন্তানই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সম্পর্ক তৈরিতে সেতু হিসেবে কাজ করে। বরং সন্তান না থাকলে দাম্পত্য জীবনে অশান্তি লেগে থাকে।

আবার সন্তান একটু বড় হলে তাদের নিজের বন্ধু-বান্ধব নিয়ে একটা নতুন জগৎ তৈরি হয়। বাবারা অফিসের দায়িত্ব নিয়ে ব্যস্ত থাকে, তখন মা কিন্তু অনেকটা একা হয়ে যায়। এ সময়টাতেও আপনাকে তার পাশে থাকা প্রয়োজন। আবার ছেলেমেয়েদের বিয়ে হয়ে গেলে, তাদের আলাদা পরিবার হলে, এই দুটো মানুষের ‍ সর্ম্পকটা কিন্তু আরও গভীর হয়। দুজনের প্রতি দুজনের মায়া বাড়তে থাকে.। দুজন দুজনকে আঁকড়ে ধরে বাচঁতে চায়। তাই সন্তান হওয়ার পর দাম্পত্য জীবনে একটু টক ঝাল মিষ্টি থাকে। আবার এই সময় সবকিছু ঠিক করে দেয়।
তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথা, সদ্য/নতুন মাকে অবহেলা না করে একটু গুরুত্ব দিন যেন দাম্পত্য জীবনে তিক্ততার জন্ম শুরুতেই মরে যায়।

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  • 288
  •  
  •  
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    289
    Shares

লেখাটি ১,৯৯৭ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.