শিশু পর্নো সাইট বন্ধে উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে ব্রিটেন

childউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক (২১ জুলাই): শিশুরা যাতে সহজেই পর্নো সাইটে ঢুকতে না পারে এবং ঢুকতে গেলেই যেন বাধার মুখে পড়ে, সেরকম ব্যবস্থা করার জন্য ওয়েবসাইটগুলোকে নির্দেশ দিতে যাচ্ছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। শিশুদের রক্ষার বিষয়টি কোম্পানিগুলোর ‘নৈতিক দায়িত্ব’ উল্লেখ করে শিগগিরই তিনি বক্তব্য রাখতে যাচ্ছেন।
গুগল, বিং এবং ইয়াহুসহ বিভিন্ন ওয়েবসাইটকে আগামী একমাসের মধ্যে চাইল্ড এক্সপ্লয়টেশান এন্ড অনলাইন প্রটেকশান সেন্টার (সিইওপি) এর সুপারিশ অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানাবেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি তিনি কিছু স্প্ল্যাশ স্ক্রিনের সুপারিশ করতে যাচ্ছেন, যাতে করে বড়রাও অনলাইনে আপত্তিকর কোন ছবি দেখলে চাকরি, পরিবার, এমনকি শিশুর অভিভাবকত্বও হারাতে পারেন। মানুষের আচরণ পাল্টানোর লক্ষ্যে পর্নো পেজগুলো এমনভাবে তৈরির প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে, যেখানে ক্লিক করে মানুষ চ্যারিটি প্রতিষ্ঠানে চলে যাবে।
গুগল, বিং এবং ইয়াহুসহ বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনের নৈতিক দায়িত্ব রয়েছে ভবিষ্যত প্রজন্মকে রক্ষার ব্যাপারে, এটাই মনে করিয়ে দিতে চান ক্যামেরন তার বক্তৃতায়। তিনি এ নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার ব্যাপারেও সতর্ক করে দিতে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। আগামী অক্টোবরের আগেই কালো তালিকাভুক্ত সাইটগুলোর ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানাবেন।
সম্প্রতি দেশটিতে বেশকিছু হত্যাকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে এই সাইটগুলোর প্রভাব লক্ষ্য করা গেছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এসব সাইটের যে প্রভাব মানুষের মনোবিকাশে পড়ে তার সাথে মোহাচ্ছন্ন হওয়ার বিষয়টি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। গত মাসেই যুক্তরাজ্যের চারটি প্রধান ইন্টারনেট প্রোভাইডার প্রতিষ্ঠান ইন্টারনেট ওয়াচ ফাউন্ডেশনকে বাড়তি এক মিলিয়ন পাউন্ড দিতে রাজী হয়েছে সিইওপি এর সাথে কাজে সহায়তার জন্য।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.