বিবিসির ওপর নাখোশ মারিয়া মিলার

maria-millerউইমেন চ্যাপ্টার (১৮ জুলাই): বিবিসির ক্রীড়া সংবাদ পরিবেশনকে ‘যৌনাবেদনময়’ অভিযোগ করে সংস্থাটিকে একহাত নিয়েছেন ব্রিটিশ সংস্কৃতি মন্ত্রী মারিয়া মিলার। তিনি বলেছেন, বিবিসির উচিত তাদের এ ধরনের খবর পরিবেশনের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া।
মারিওন বারতোলি সম্পর্কে উইম্বলডনের কমেন্টাটর জন ইনভারডেলের মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে মিলার বলেন, শুধু ক্ষমা চাইলেই হবে না। বিবিসিকে তার বিরুদ্ধে আরও পদক্ষেপ নিতে হবে। পাশাপাশি তিনি মুরফিল্ড গলফ ক্লাবের পুরুষতান্ত্রিক নীতিমালার কারণে ওপেন গলফ চ্যাম্পিয়নশিপ বয়কট করবেন বলেও জানিয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, ওই ক্লাবটিতে নারী সদস্য নেয়ার ব্যাপারে আপত্তি আছে নীতিমালায়।
সংস্কৃতি মন্ত্রী উইম্বলডন নিয়ে বিবিসির পরিবেশনাকে ‘যৌনাবেদনময়’ উল্লেখ করে সমালোচনা করেন। বিবিসির মহাপরিচালক টনি হলকে লেখা এক চিঠিতে মিলার উইম্বরডন কমেন্টাটর জন ইনভারডেলের মন্তব্যের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে কিনা জানতে চান। এবারের উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের সময় মারিওন বারতোলির চেহারা নিয়ে এবং শারাপোভার সাথে তাকে তুলনা করে ইনভারডেল বলেন যে, কখনও তিনি শারাপোভা হতে পারবেন না, কি করে খেলবেন তিনি? তার এই মন্তব্যে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি।
সংস্কৃতির পাশাপাশি নারী ও সমতার মন্ত্রী মিলার বলেন, তিনি বিবিসির ব্যাপারে খুবই উদ্বিগ্ন, কারণ তিনি এতে নারীর স্পোর্টসকে প্রাধান্য দিয়ে বেশি বেশি করে কভারেজ দেয়ার প্রবণতা দেখতে পেয়েছেন।
গত সপ্তাহে পাঠানো ওই চিঠিতে মিলার বলেন, তার কাছে কিছু বিষয় খটকা ঠেকেছে এ কারণেই যে, একজন নারী অ্যাথলেটের চেহারা এবং উচ্চতা নিয়ে এ ধরনের কোন মন্তব্য হতে পারে না যুক্তরাজ্য তথা বিশ্বের স্পোর্টিং জগতের এমন একটি খেলায়।
তিনি বলেন, টেলিভিশনের সামনে এবং বারতোলিকে লেখা চিঠিতে ইনভারডেলের শুধু ক্ষমা চাইলেই হবে না, বিবিসি আর কী পদক্ষেপ নেয়, তা তিনি দেখতে চান। তিনি খুবই খুশি হবেন যদি এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়। সেইসাথে ভবিষ্যতে নারী অ্যাথলেটে এবং নারীর স্পোর্টস সম্পর্কে মন্তব্যের বিষয়ে বিবিসি আরও ইতিবাচক এবং গঠনমূলক পদক্ষেপ নেবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
এদিকে এডিনবরা গলফ ক্লাবের নীতিমালায় নারী সদস্য নেয়ার বিষয়ে আপত্তি থাকায় আসছে ওপেন গলফ চ্যাম্পিয়নশিপ বয়কট করতে যাচ্ছেন মিলার এবং দেশটির ক্রীড়া মন্ত্রী হাগ রবার্টসন। তাছাড়া, এই ইভেন্টটি বিবিসির পক্ষ থেকে ইনভারডেলেরই কভার করার কথা রয়েছে।
সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে একজন কর্মকর্তা বলেছেন, প্রায় ১০ লাখ নারীর স্পোর্টসে উৎসাহিত করার ব্যাপারে লন্ডন অলিম্পিক যে সুনাম অর্জন করেছিল তা বিবিসির এ ধরনের প্রবৃত্তির কারণে আজ হারাতে বসেছে। মিলারের চিঠিটি বিবিসি ট্রাস্টের চেয়ারম্যান লর্ড প্যাটেনের কাছে পাঠানো হয়েছে। নারীর স্পোর্টস কিভাবে আরও ভালভাবে এবং শালীনতার সাথে পরিবেশন করা যায়, এ নিয়ে গত বছর মিলার বেশ কয়েকটি বৈঠক করেন সম্প্রচার মাধ্যমগুলোর সাথে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, মিলার যা বলেছেন, তা উপেক্ষা করা সম্ভব না।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.