আল-বদর নেতা আজহারের বিরুদ্ধে অভিযোগ ঘঠন

azhar rajakarউইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে ছয় ঘটনায় আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন।

প্রসিকিউটর এ কে এম সাইফুল ইসলাম ও নূরজাহান বেগম মুক্তা বৃহস্পতিবার অভিযোগ জমা দেন। গঠিত অভিযোগের মধ্যে রয়েছে হত্যা, গণহত্যা, অপহরণ, নির্যাতন ও ধর্ষণ।

প্রসিকিউশানের এক প্রেস ব্রিফিংএ জানানো হয়, জামায়াতের এই সহকারী সেক্রেটারি জেনারেলের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ যেসকল অভিযোগ আনে তার মধ্যে রংপুর অঞ্চলে ১ হাজার ২২৯ ব্যক্তিকে হত্যা, ১৭ জনকে অপহরণ, একজনকে ধর্ষণ, ১৩ জনকে আটক ও নির্যাতন এবং শতশত বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ ও লুণ্ঠনের অভিযোগ অন্যতম।

অভিযোগে বলা হয় ‘৭১ এ রংপুর কারমাইকেল কলেজে অধ্যয়নকালে তিনি জামায়াতে ইসলামীর তখনকার ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্রসংঘের রংপুর শাখার সভাপতি। জেলা আলবদর বাহিনীর নেতৃত্বেও চিলেন তিনি।

২৭ মার্চ ন্যাপের (ভাষানী) নেতা ও আয়কর আইনজীবি এওয়াই মাহফুজ আলীসহ ১১ জনকে অপহরণ করে হত্যার ঘটনায় ঘটনায় আজহার জড়িত বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।

এছাড়াও, ১৬ এপ্রিল রংপুরের বদরগঞ্জ থানার ধাপপড়ায় ১৫ জন নিরীহ, নিরস্ত্র বাঙালীকে গুলি করে হত্যা, ১৭ এপ্রিল রংপুরের বদরগঞ্জের ঝাড়ুয়ারবিল এলাকায় ১২শ’র বেশি নিরীহ লোককে হত্যা, ১৭ এপ্রিল কারমাইকেল কলেজের চারজন অধ্যাপক ও একজন শিক্ষকের স্ত্রীকে কলেজ ক্যাম্পাসের বাসা থেকে ধরে নিয়ে দমদমা ব্রিজের কাছে গুলি করে হত্যা, নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে রংপুর শহরের গুপ্তাপাড়ায় একজনকে নির্যাতন এবং ১ ডিসেম্বর বেতপট্টি থেকে একজনকে অপহরণ করে রংপুর কলেজের মুসলিম ছাত্রাবাসে নিয়ে নির্যাতন সহ আরো ব্যাপক লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের সাথে তিনি জড়িত বলে অভিযোগে বলা হয়েছে।

গতবছর ২২ অগস্ট মগবাজারের বাসা থেকে এটিএম আজহারকে গ্রেপ্তারের পর থেকে তিনি কারাগারে রয়েছেন।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.