“মা-মেয়ের গল্পকথা”

0

জান্নাতুল ফেরদৌস নৌজুলা:

একটি মেয়ে জন্মানোর সাথে সাথেই তাকে কিভাবে নরম-কোমল, নমনীয়-মোহনীয় এবং রূপসী-অনন্য করে গড়ে তোলা যায় ~ সে চেষ্টায় সবাই ব্যস্ত হয়ে পড়ে|

এ চেষ্টায় পরিবার/সমাজ তো আছেই; আছে চারপাশের আরো অনেক কিছুই! প্রতিনিয়ত সেগুলো চোখে পড়ে, আর দীর্ঘশ্বাস ফেলে ভাবি – এর পরও আশা করি, কোনো একটি মেয়ে নিজের জন্য বাঁচবে? নিজেই নিজেকে বাঁচাতে পারবে? নিজের সিদ্ধান্তে অটল থেকে যে কোনো অপছন্দের ‘সিদ্ধান্ত’কে বা ‘পুরুষ’কে ‘না’ বলতে পারবে? কে জানে!

ইদানিং আমার কন্যাকে গল্প পড়ে শোনাতে গিয়ে তেমনই একটা বিষয় মনে আসলো| ছোটবেলায় পড়া প্রিয় রূপকথাগুলোর উপর প্রায়ই আমার অনেক রাগ হতো! কেন সব সময় রাজকন্যারা বিপদে পড়তো আর রাজপুত্ররা উদ্ধার করতো? কন্যা’র রূপকথার বই এর রাজপুত্র-রাজকন্যারাও দেখি, আছে তেমনটিই| চরিত্রগুলো এখনও খুব একটা বদলায়নি!

শুধু কন্যা’র জন্মের সময়ে তার খালামনি’র কাছ থেকে পাওয়া রবার্ট মান্চ এর ‘দ্য পেপার ব্যাগ প্রিন্সেস’ বই এর পাত্র-পাত্রীরা ছাড়া!  এই গল্পটা একটু অন্যরকম|

গল্পে দেখা যায়–  ‘আগুনের নিঃশ্বাস ফেলা এক ভয়ঙ্কর ড্রাগন’ একটা পুরো রাজ্যকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে শেষ করে দেয়| শুধু রাজকন্যাটি পালিয়ে কোনমতে নিজেকে বাঁচাতে পারলেও, ঐ ড্রাগন রাজ্যের সবাইকে খেয়ে রাজকন্যার সুদর্শন বয়ফ্রেন্ডকে বন্দী করে নিয়ে চলে যায়| রাজকন্যা’র তখন বিরাট দৈন্যদশা! কোথাও কিচ্ছু নেই; অনেক খুঁজে পেতে একটা পেপার ব্যাগ অক্ষত পায়| সেইটাই গায়ে জামা হিসেবে পরে নিয়ে ড্রাগনের কাছে যায়|  দারুণ ঝুঁকি নিয়ে, অসাধারণ কৌশলে সে তার বয়ফ্রেন্ডকে ড্রাগনের হাত থেকে উদ্ধার করে আনে|  কিন্তু ড্রাগনের হাত থেকে নিরাপদ দূরত্বে এসে রাজপুত্রটি জানালো- সে এমন ‘দুঃখে বিধ্বস্ত, পেপার ব্যাগ পরা কোনো মেয়ে’কে বিয়ে করবে না| তবে হ্যাঁ, যদি মেয়েটি আবার আগের মতো ধনী-লাস্যময়ী রাজকন্যা হয়ে তার কাছে আসতে পারে, তাহলে বিয়ে করবে|  এই শুনে, পেপার ব্যাগ প্রিন্সেস প্রথমে প্রচণ্ড কষ্ট পেল| অন্যদিকে মুখ ফিরিয়ে একটু চোখও মুছলো| তারপর সাফ জানিয়ে দিলো- সে চেষ্টা করলেই খুব শিগগির আবার আগের অবস্থানে ফিরে যেতে পারবে; কিন্তু এমন স্টুপিড ছেলেকে সে নিজেই আর কোনদিন বিয়ে করবে না! বিয়ে তো দূরের কথা, বন্ধুও বানাবে না!!

যতবারই এ গল্পটা আমার মেয়েকে পড়ে শোনাই, ও চোখ-মুখ বন্ধ করে তা শোনে| তারপর প্রতিবারই একটা কথা বলে| আজও বললো- “মা আমিও এমন স্টুপিড ছেলেকে কক্ষণো বিয়ে করবো না!”

…. আমি হাসি| আর মনে মনে বলি –  ‘মনে থাকে যেন, দেখিস …….’

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

লেখাটি ১,২৩০ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.