সাংবাদিকতাকে পর্ন ইন্ডাস্ট্রির সাথে গুলিয়ে ফেলবেন না

0

সুমু হক:

ধর্ষণের সাথে সম্মান, সম্ভ্রম এইসব বায়বীয় ধারণার কোনো সম্পর্ক নেই খুন কিংবা ডাকাতির মতোই ধর্ষণ একটি অপরাধ, জঘণ্য অপরাধ  কিন্তু এই অপরাধের ঘটনার রিপোর্ট করতে গিয়ে মাননীয় সাংবাদিক বন্ধুরা ধর্ষণের শিকার একটি শিশুকে বারবার মিডিয়াতে এনে নতুন করে ধর্ষণ করেন কোন বিচারে?  

বাংলাদেশে যারা সাংবাদিকতা করতে আসেন, তাদের অনেকেই সাংবাদিকতার এথিক্স বিষয়ে কোন জ্ঞান রাখেন না, এর প্রমাণ আমরা বারবার পাই  তাই তাদের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি, ধর্ষণের শিকার হওয়া যে কোন ব্যক্তির পরিচয় ইচ্ছেমতো মিডিয়ায় প্রকাশ করা যায় না, ওই ব্যক্তির অনুমতি ছাড়া

আর যদি ধর্ষণের শিকার ব্যক্তিটি একজন অপ্রাপ্তবয়স্ক মানুষ হোন, তবে এমনকি তার অভিভাবকের অনুমতি থাকলেও সে পরিচয় প্রকাশ করা যায় না  প্রকাশ করাটা অপরাধ পাশ্চাত্যের দেশগুলোতে এটা আইনত শাস্তিযোগ্য অপরাধ, যদিও বাংলাদেশের আইন কী বলে আমার জানা নেই

আইনে শাস্তির বিধান থাকুক কিংবা না থাকুক, এটি যে এথিক্যালি কখনোই গ্রহণযোগ্য নয়, তাতে কোনো সন্দেহ থাকার অবকাশ নেই। প্রতিটি মানুষ তার ব্যক্তিগত জীবনের ট্রমা কিভাবে কাটিয়ে উঠবেন সেটা তার একান্তই ব্যক্তিগত বিষয় পরে কোনো এক সময়ে এই বিষয়টিকে তিনি সামনে নিয়ে আসতে চাইলে, সেটা নিয়ে কথা বলতে চাইলে অবশ্যই পারেন কিন্তু সেই পর্যন্ত তার প্রাইভেসিতে হস্তক্ষেপ করা আরেকটি অপরাধ

তার ওপর অনেক সময়েই থাকে ধর্ষণের ঘটনার রগরগে বর্ণনা, সাথে অদ্ভুত সব গ্রাফিক্স, যেমন একটি নারীর মুখ কিংবা তার বিস্রস্ত পোশাক ঘিরে তাকে ধরতে আসা কিছু হাত কিংবা একটি নারীর মুখ চেপে ধরা একটি হাতে, এই ধরণের ক্লিশে কিছু ইলাস্ট্রেশন ঘুরে ফিরে যা বাংলা এবং হিন্দি সিনেমার রগরগে ধর্ষণের দৃশ্যগুলোকে মনে করিয়ে দেয়  এসব ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য কতখানি ধর্ষণ নামক অপরাধটির রিপোর্ট করা আর কতখানি পত্রিকার কাটতি বাড়ানো, তা নিয়ে সন্দেহ জাগা স্বাভাবিক

ইন্টারনেটের এই যুগে কোন বিষয়ে জানতেই খুব বেশি সময় কিংবা ব্যয়বহুল নয় তাই দক্ষিণ এশিয়ার বাইরে এই ধরণের ঘটনা মিডিয়া কিভাবে প্রকাশ করে সেটা জানতে শুধুমাত্র আপনাদের সদিচ্ছাই যথেষ্ট

তাই সাংবাদিক এবং মিডিয়া কর্মীদের উদ্দেশ্যে আবারও বলছি, আপনার কলম কিংবা ক্যামেরা ব্যবহার করুন ধর্ষণ নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করতে, ধর্ষকের বিচার নিশ্চিত করতে এক ধরনের বিকৃত শ্রেণীর মানুষের ততোধিক যৌনতার খিদে মেটাতে ধর্ষণের রগরগে ব্যবহার করা আপনার কাজ নয় সেজন্যে বিলিয়ন ডলারের একটি পর্ন ইন্ডাস্ট্রি পৃথিবীব্যাপী যথেষ্ট তৎপরতার সাথে কাজ করে চলেছে চাইলে আপনি তাতে যোগ দিতেও পারেন কিন্তু আপনার গণমাধ্যমটিকে সাংবাদিকতার নামে একাজে ব্যবহার করার কোনো অধিকার আপনার নেই

লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares

লেখাটি ১,৫৭০ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.