হিজাব কি নারীর স্বাধীন পোশাক?

0
দিনা ফেরদৌস:
কিছুদিন আগে ওয়াশিংটন ডিসিতে এক মুসলিম বাঙ্গালি বিয়ের অনুষ্ঠানে যাই। আমি ছাড়া প্রায় সকলেই হিজাব পরা ছিল।তারা যে নিজেদের খুশিতে হিজাব লাগিয়েছে এতে কোনো সন্দেহ নেই।
হিজাবি সবার মাথায় পাথরের কাজ করা অসংখ্য ঝক্কি-মক্কি। কারও ঝলকানি লম্বা পোশাক, তো কারো টাইট পোশাক। এইসব পোশাকে একটা মেয়ের সৌন্দর্য্য ঢেকে রাখার বদলে প্রকাশই করে বেশি, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। শুধু চুল ঢেকে রাখার কারণে এটার সঙ্গে ধর্মীয় অনুভূতি যুক্ত হয়ে গেছে।

দিনা ফেরদৌস

যেহেতু তারা নিজের ইচ্ছেতেই এই সাজ ধারণ করেছে, তাই এটা তাদের স্বাধীনতা। আমি বিশ্বাস করি, যে পোশাকে নারীকে দেখতে সুন্দর লাগে সে তাই পরতে পারার অধিকার রাখে। এটা তার স্বাধীনতা। কিন্তু এই হিজাব লাগানোর স্বাধীনতার সঙ্গে একমত হতে পারছি না, কারণ কোনো মেয়ে যখন নিজের খুশিতে জিন্স, টি-শার্ট পরে চলাফেরা করে, তখন পুরুষদের চোখ যাওয়ার জন্য মেয়েদের পোশাককে দায়ী করা হয়।

নিজে যেসব পোশাক পরে সাচ্ছন্দ্যবোধ করি তাই পরতে পারছি আজ দেশের বাইরে এসে। দেশে থাকলে যা পরা সম্ভব হতো না। শুধু আমি না, দেশে যেসব মেয়ের নিজেদের খুশিমতো কাপড় পরার ইচ্ছে আছে, তারাও বাইরে বের হতে গেলে বহু চিন্তায় পড়েন পোশাক নির্বাচনে। কী পরে বের হলে পোশাকের উপর দোষ চাপিয়ে ধর্ষণ জায়েজ করা হবে না। তখন কেউই নারীর ইচ্ছা স্বাধীন পোশাক পরিধানকে তার স্বাধীনতার অংশ হিসেবে দেখেন না।
কথা হচ্ছে মেয়েরা এই যে ঝক্কি-মক্কি লাগিয়ে হিজাব পরে, এটা নিজেদের ইচ্ছেতে হলেও পুরুষদের সমর্থন আছে বলেই তা পরা সম্ভব হচ্ছে। আর জিন্স-ফতুয়াতে যেহেতু নারীমাংসু লোলুপ পুরুষরা নিজেদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না বলে ঘোষণা দিয়েছে, তাই ওইসব পোশাকে নারীর উগ্রতাই প্রকাশ পায়।
হিজাব পরা নারীর স্বাধীনতা কথাটির সঙ্গে একমত পোষণ করতাম তখনই, যখন দেখতাম কোনো মেয়ে নিজের খুশিতে জিন্স-ফতুয়া পরে স্বাভাবিক চলাফেরাতে কোনো মন্তব্য হচ্ছে না। নারীর খুশিমতো পোশাক পরা নিয়ে সমস্যা হতো না, যদি না পুরুষের দুষিত মন, মগজ, চোখ তাদের সঙ্গ দিত। সমস্যা যেখানে, সমাধান সেখান থেকেই শুরু হোক। পাগলা কুকুরের ভয়ে জলাতংকের টিকা না দিয়ে, শিকলে কুকুর বেঁধে রাখার ব্যবস্থা করা হোক। তা না হলে পাগলা কুকুরদের হাতে আট মাসের বাচ্চা যেমন নিরাপদ না, তেমনি কবরে মৃত নারীর লাশও নিরাপদ না। আর হিজাব যে কোনো নারীর নিরাপত্তা দিতে পারে না, তা ইতিমধ্যেই প্রমাণ হয়ে গেছে।

লেখাটি ৩,০৪৮ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

RFL
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.