শফীর বক্তব্য ‘বিকৃত মানসিকতা’

উইমেন চ্যাপ্টার (১৩ জুলাই): নারীকে নিয়ে হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর বক্তব্য নারীদের জন্য ‘অবমাননাকর’ উল্লেখ করে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা।

তারা বলছেন, আহমদ শফীর এই বক্তব্য বিকৃত মানসিকতার পরিচায়ক।

‘বাংলাদেশ রুখে দাঁড়াও’-এর পক্ষে সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিশিষ্ট ব্যক্তিরা শফীর কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

এতে সই করেছেন, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. আকবর আলি খান, শিক্ষাবিদ অজয় রায়, বিশিষ্ট শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী, সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক, ডা. আনোয়ারা সৈয়দ হক, কামাল লোহানী, নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, ডা. সারওয়ার আলী, জিয়াউদ্দিন তারেক, অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, সাংবাদিক আবেদ খান, নাসিমুন হক আরা হক মিনু ও অর্থনীতিবিদ এমএম আকাশ।

শফীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে তারা বলেন, “শফীর নেতৃত্বে হেফাজতে ইসলামের এ ধরনের মানসিকতা নারীকে পুনরায় অবরোধবাসিনী ও উন্নয়নমুখী দেশকে মধ্যযুগে প্রত্যাবর্তন করতে উদ্যত হয়েছে। তাই, আমরা জাতীয় স্বার্থে সকল রাজনৈতিক দল, সামাজিক সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানকে এ ধরনের অপশক্তির তুষ্ট কিংবা লালন করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান করছি।”

আনিসুজ্জামান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “সামাজিক নেটওয়ার্কে প্রচারিত হেফাজতের আমিরের ওয়াজে দেশের নারী সমাজ সম্পর্কে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য বিকৃত মানসিকতার পরিচায়ক। পোশাক শিল্পে কর্মরত নারীপুরুষের সমঅধিকারের যে বিধান রয়েছে, তার এ বক্তব্য এর পরিপন্থি।”

এতে আরো বলা হয়, “বাংলাদেশের বিস্ময়কর অর্জনের পেছনে নারী সমাজের অবদান রয়েছে। শিক্ষাক্ষেত্রে নারীর বিপুল সংখ্যায় অংশগ্রহণ ও সকল ধরনের কর্মক্ষেত্রে নারীর পদচারণা দেশকে আধুনিক রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। আমরা মনে করি, পবিত্র ধর্মের অপব্যবহার, কুসংস্কার ও রক্ষণশীলতাকে অতিক্রম করে নারীর ক্ষমতায়ন ও সমঅধিকার মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্নের সমাজ গড়ার রক্ষাকবচ।”

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.