ভীষণ শংকা এই প্রজন্মকে নিয়ে….

তানিয়া তাসনিন: 

’দোস্ত তোর বোনটা কিন্তু জোশ দেখতে!

হু, আমার বোনটা সেক্সি না অনেক? ও খালি আমার বোন বইলা, নাইলে কবেই……

‘কি কইলি এইটা মাম্মা!!!’

হ দোস্ত, আমাদের বাথরুমের উপরে একটা ছোট্ট জানলা আছে, ঐটা দিয়া তো আমি একদিন আপারে দেখছিও………’

তানিয়া তাসনিন

– এই কথোপকথনটা অষ্টম শ্রেণিতে পড়া দুই বন্ধুর ফেইসবুক চ্যাটিংয়ের চুম্বকাংশ! প্রথম ধাক্কায় স্ক্রিনশটগুলো দেখে আমি কিছুক্ষণ স্তব্ধ হয়ে বসেছিলাম! বোঝার চেষ্টা করছিলাম, আমরা কি এই যুগের ছেলেমেয়েদের বেশি স্বাধীনতা দিয়ে ফেলেছি? নাকি কড়া শাসনের কারণে ওদের অবদমিত যৌনাকাঙ্ক্ষাকে এভাবেই প্রকাশ করতে হচ্ছে?   

সহজলভ্যতার এই যুগে আমরা যতোই আমাদের ছেলেমেয়েদের চার দেওয়ালের মাঝে আবদ্ধ করে রাখি না কেন, তারা কিন্তু পর্ন, সেক্স কোনোটা থেকেই দূরে নেই। আপনি যতোই চোখে ঠুলি পড়ে থাকেন, আর বলতে থাকেন, আমার ছেলের মতো ভালো ছেলে হয়-ই না, ততোই আপনি আপনার ছেলেকে হারাচ্ছেন একটু একটু করে! ওদের সুযোগ করে দিচ্ছেন রেপিস্ট হওয়ার, হ্যাঁ ঠিক শুনেছেন, আপনিই তাকে রেপিস্ট হওয়ার সুযোগ করে দিচ্ছেন। উসকে দিচ্ছেন তাদের যত্রতত্র নিজেদের অবদমিত মনোবাসনা পূর্ণ করার খায়েশ!

এখন সিদ্ধান্তটা আপনার, এভাবেই আপনার সন্তানটিকে যৌনবিকারগ্রস্ত করে তুলবেন নাকি ছোটোবেলা থেকে তাদের শেখাবেন যে নারীশরীর কেবলমাত্র যৌন বস্তু নয়? নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সম্মানের বিষয়টা যদি ছোটোবেলা থেকেই ওদের মাথায় একটু একটু করে ঢুকিয়ে দেওয়া যায়, তাহলে হয়তো কিছুটা হলেও এইধরনের বিকৃত চিন্তা থেকে আপনার সন্তানদের দূরে রাখতে পারবেন, একটু কি খেয়াল করবেন, অল্প বয়সেই পেয়ে যাওয়া মাল্টিমিডিয়া মোবাইল ফোন, কম্পিউটারে সে আসলে কি করছে, কী দেখছে?

একটু কি সময় দেবেন ওদের আপনার ঐ সীমাহীন ব্যস্ততার মাঝে? ভীষণ শঙ্কা হচ্ছে এই প্রজন্মকে নিয়ে, ভীষণ! এই বিগড়ে যাওয়া সময়ের দায় আমরা কেউ কি এড়াতে পারি?

লেখক: উন্নয়ন কর্মী, ব্র্যাক

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.