রাষ্ট্র কেন খুনিদের দায়ভার নেবে: মেয়র আইভী

ivyউইমেন চ্যাপ্টার (০৮ জুলাই): নারায়ণগঞ্জের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, দেশের পাঁচ-পাঁচটি সিটি করপোরেশনে যোগ্য প্রার্থী থাকা সত্ত্বেও আওয়ামী লীগ কেন হেরে গেল, সেটা এখনই অনুধাবন করতে হবে। জাতীয় ইস্যুগুলো মুখ্য হয়ে উঠার কারণেই এই পরাজয় হয়েছে, কাজেই ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক না হলে আরও ভয়াবহতা অপেক্ষা করছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।
সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইভী একথা বলেন।
নারায়ণগঞ্জের কিশোর তানভীর মোহাম্মদ ত্বকী হত্যার চার মাস উপলক্ষে ‘ত্বকী হত্যার বিচারে রাষ্ট্রের নির্লিপ্ততা ও গণতন্ত্রের সংকট’ শিরোনামে এ গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চ ।
আইভী বলেন, ‘রাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায়, প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তায় একের পর এক খুন করে যাচ্ছে একটা শ্রেণী। নারায়ণগঞ্জের একটি পরিবার নিজেদের স্বার্থে দলকে (আওয়ামী লীগ) বিতর্কিত করছে। যে শামীম ওসমান সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি করছে, দল কেন তাকে প্রশ্রয় দেবে? পক্ষ নেবে? তাদের বোঝা কেন দলকে বয়ে বেড়াতে হবে?’

আইভী বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের ৯০ ভাগ মানুষ, প্রতিটি ধূলিকণা জানে কে ত্বকীর হত্যাকারী। অথচ রাষ্ট্রের নিয়োগপ্রাপ্ত প্রশাসন জানে না। আমি প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানাবো, অবিলম্বে ত্বকীর হত্যার আসামি শামীম ওসমানের ছেলে অয়ন ওসমান, ভাই নাসিম ওসমানের ছেলে আজমেরি ওসমানকে গ্রেপ্তার করতে তাঁরা যেন প্রশাসনকে নির্দেশ দেন।’ তিনি বলেন, ‘তাঁদের যদি গ্রেপ্তার না করা হয়, তাহলে নারায়ণগঞ্জের মানুষ চুপ করে বসে থাকবে না।’

আইভী বলেন, ‘আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা আছেন যাঁরা ঢাকায় বসে টাকা খেয়ে শামীম ওসমানের পক্ষে কথা বলেন। এই নেতাদের জন্য আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগকে ভালোবেসে, দলীয় আদর্শের রাজনীতি করি। কিন্তু আমাদের মূল্যায়ন করা হয় না। এখন দলীয় প্রধানকেই ঠিক করতে হবে, যেসব সন্ত্রাসী, লুটেরা দলকে ডোবাবে, তিনি তাদের প্রশ্রয় দেবেন, নাকি নিবেদিতপ্রাণ কর্মীদের পক্ষে অবস্থান নেবেন।’

অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেন, ‘দেশে যদি আইনের শাসন না থাকে তাহলে গণতন্ত্র থাকে না।’ ত্বকী হত্যার ব্যাপারে উপযুক্ত তদন্ত করে অবিলম্বে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানান তিনি।

অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ‘আমরা দেখছি, রাষ্ট্র সন্ত্রাসীদের নির্মূল করছে না, প্রশ্রয় দিচ্ছে। রাষ্ট্রকে মানবিক করতে হলে আমাদের সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আন্দোলন অব্যাহত রাখতে হবে।’

গোলটেবিল বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন নিহত ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বি। তিনি বলেন, ‘কয়েকটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে বাস্তবতা প্রমাণিত হয়েছে। সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় যেসব গডফাদার আছে, তাদের গ্রেপ্তার করতে হবে। নয়তো সিটি করপোরেশনের ফলাফলের মতো জাতীয় নির্বাচনে একই পরিণতি হবে।’

গোলটেবিল বৈঠকে আরও আলোচনা করেন অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, অধ্যাপক এম এম আকাশ, রাজনীতিবিদ পঙ্কজ ভট্টাচার্য্য, নারী নেত্রী মালেকা বেগম।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.