জাতীয় ইস্যুগুলোই নির্বাচনে পরাজয়ের কারণ

gajipurউইমেন চ্যাপ্টার: দেশের চার-চারটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনে হারের পর আওয়ামী লীগের ‘দ্বিতীয় দুর্গ’ বলে বিবেচিত গাজীপুরেও শেষরক্ষা হলো না। অনেক নাটকীয়তায় পরিপূর্ণ এই নির্বাচনে জাতীয় নেতাদের উপস্থিতি একে অন্য এক উচ্চতায় নিয়ে গেছিল। সবার নজর ছিল গাজীপুরের দিকে। এই নির্বাচন আগামীতে জাতীয় নির্বাচনেরই প্রতিচ্ছবি বলেও অনেকে মন্তব্য করেছেন।

বিবিসি বাংলার কাছে স্থানীয়রা এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, পদ্মা সেতু কেলেংকারি, শেয়ার বাজার ইস্যুসহ নানা কারণই পরাজয় ডেকে এসেছে ক্ষমতাসীনদের।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতেও, জাতীয় ইস্যুগুলোই এই নির্বাচনে প্রাধান্য পাওয়ায় পরাজয় ঘটেছে ক্ষমতাসীনদের। অনেকেই আবার এই পরাজয়কে ‘জাতীয় ইস্যু’ বলতে নারাজ।

প্রধান বিরোধী দল বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেছেন, জনগণ সরকারের চার বছরের দু:শাসনের প্রতিবাদ করেই সিটি করপোরেশন নির্বাচনগুলোতে জনগণ ১৮ দলীয় জোটকে ভোট দিয়েছে। আজ ৭ জুলাই অনুষ্ঠিত বিবিসি’র বাংলাদেশ সংলাপে মি. নোমানের এ মন্তব্যের জবাবে সরকারের নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে সরকার উদ্বিগ্ন নয়। কিছু ভুল-ত্রুটি সরকারের হয়েছে স্বীকার করে তিনি বলেন, সেগুলো সংশোধন করলে জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগেরই জয় হবে।

তবে সরকারের ভিতরেই বেশ তোলপাড় চলছে এই পরাজয় নিয়ে। যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘গত চার মাসের তুলনায় আগামী চার মাস ভিন্ন চিত্র থাকবে। আগামী নির্বাচন পর্যন্ত মাতাল হাওয়া বইতে থাকবে। এ হাওয়া কোনদিকে যায়, সেটা বলা যাবে না।’

নির্বাচনে জয়ের পর এক প্রতিক্রিয়ায় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র এম এ মান্নান বলেছেন, নির্বাচনে তাঁর বিজয়ের পেছনে স্থানীয় নয়, জাতীয় ইস্যু কাজ করেছে। সরকারের দুর্নীতি, খুন, লুটপাট, ব্যর্থতা—এসবে মানুষ বিরক্ত। তাই তাঁরা সরকারকে সমর্থন না দিয়ে তাঁকে দিয়েছেন।

আজ রোববার গাজীপুরের সালনায় নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি। গত ৫ মে রাজধানীর মতিঝিলে হেফাজতে ইসলামের ওপর সরকার হামলা চালিয়েছে অভিযোগ করে এম এ মান্নান বলেন, হেফাজতের ওপর হামলা মানুষ ভালোভাবে নেয়নি। এটিও তাঁর বিজয়ের একটি কারণ।

নির্বাচনের রায় মেনে নিয়েছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী আজমত উল্লাহ খান। দৈনিক প্রথম আলোকে তিনি বলেছেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। তবে নির্বাচনে জামায়াত-শিবিরের মিথ্যা প্রচারণা, কালো টাকা ও ধর্মকে ব্যবহার করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও জনগণ যে রায় দিয়েছে, তা মাথা পেতে নিয়েছি।’

ফলাফল মূল্যায়ন করতে গিয়ে আওয়ামী লীগের এই নেতা দাবি করেন, খুলনা, বরিশাল, রাজশাহী ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ফলাফলের একটা প্রভাব গাজীপুরেও পড়েছে।

এদিকে আজ সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, চার সিটি করপোরেশনের পর গাজীপুরের জনগণও সরকারকে ‘না’ জানিয়ে দিয়েছে। পাঁচটি সিটি করপোরেশনে পরাজয়ের পর ন্যূনতম আত্মসম্মানবোধ থাকলে সরকারের উচিত হবে পদত্যাগ করা।

আওয়ামী লীগের দুর্গ হিসেবে পরিচিত গাজীপুরে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থীর হেরে যাওয়া প্রসঙ্গে যোগাযোগ মন্ত্রী আজ সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘জনগণের কাছে দুর্ভেদ্য দুর্গ বলে কিছু নেই। জনগণ যেকোনো দুর্গই ভেঙে দিতে পারে, যদি তারা আস্থা হারিয়ে ফেলে।’

সিটি করপোরেশন নির্বাচন জাতীয় নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘এটি ছিল স্থানীয় নির্বাচন। জাতীয় নির্বাচন আলাদা বিষয়। এই নির্বাচন জাতীয় নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না, তবে পরাজয় থেকে শিক্ষা নিয়ে ভুল সংশোধনের কাজে লাগাতে চাই।’

পাঁচ বছর আগে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী এম এ মান্নান গাজীপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রহমত আলীর কাছে এক লাখ ২৯ হাজার ২৯ ভোটে হেরেছিলেন। সেই তিনিই মেয়র নির্বাচনে এক লাখেরও বেশি ভোটে হারিয়েছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী আজমত উল্লা খানকে। গাজীপুরের স্থানীয় বাসিন্দাদের মতো বিশিষ্টজনেরা মনে করছেন, জাতীয় ইস্যুগুলো এ নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করেছে। প্রার্থী বা এলাকার উন্নয়নের কথা আমলে নেননি ভোটাররা।

গাজীপুরের স্থানীয় বাসিন্দারাও মনে করেন, কয়েক সপ্তাহ আগে অনুষ্ঠিত খুলনা, বরিশাল, সিলেট ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ফলাফলের প্রভাব পড়েছে এই নির্বাচনে। এর বাইরে নির্বাচন থেকে আওয়ামী লীগের অপর প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের সরে যাওয়া, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া রাজনৈতিক ইস্যু, শেয়ারবাজার ও ব্যাংকগুলোর আর্থিক অনিয়ম নিয়ে ওঠা অভিযোগ সম্পর্কে সরকারের উদাসীনতা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পরাজয়ের অন্যতম কারণ। নির্বাচনের আগে কর ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগ এনে এম এ মান্নানের বিরুদ্ধে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সংবাদ সম্মেলনও আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থীর বিপক্ষে গেছে।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.