স্তন ক্যানসার এবং বিজ্ঞাপন নির্মাতার ইতরামি

শান্তা মারিয়া: স্তন শব্দটি যদি যুক্ত থাকে কোনো কিছুর সঙ্গে তাহলেই কি সেটা যৌনগন্ধী হতে হবে? আমার মনে হয় যে নির্মাতা স্তন ক্যানসারের উপর সাম্প্রতিক ভিডিওটি বানিয়েছেন তিনি তাই ভাবেন। সম্ভবত মাতৃস্তন কথাটা শুনলেও তার যৌনভাব জাগবে। সম্ভবত তিনি যখন নিতান্ত শিশু ছিলেন তখন মাতৃস্তন্য পান করেননি, গাধার দুধ খেয়ে বেড়ে উঠেছেন। তাই তার উর্বর মস্তিষ্কে স্তন ক্যানসারের মতো এমন জীবনঘাতি সিরিয়াস বিষয় নিয়ে রগড় করার আইডিয়া উদয় হযেছে।বেশ কিছুদিন ধরে উইমেন চ্যাপ্টারে ও ফেইসবুকে বিজ্ঞাপনটি নিয়ে নিন্দাবাদ শুনছিলাম। তারপরও গা করিনি। কারণ ভাবছিলাম সব বিষয় নিয়েই কি আমাকে বা অন্য সবাইকে কথা বলতে হবে?

naila-1আজ একটু আগে ইউটিউবে বিজ্ঞাপনটি আমি পুরো দেখলাম। একজন মানুষ কতখানি বুদ্ধিহীন হলে এ জাতীয় বিষয় এত হালকাভাবে উপস্থাপন করতে পারে এবং সেটি উপস্থাপনার জন্য নায়লা নইমের মতো যৌনআবেদনময়ী মডেলকে দিয়ে ফালতু ভঙ্গীতে কথা বলার নির্দেশনা দিতে পারে সেটা চিন্তা করে আমি সত্যিই স্তম্ভিত হয়ে গেছি।  স্তন ক্যানসার যে শুধু নারীর নয় পুরুষেরও হতে পারে সেই তথ্যটিও বোধহয় নির্মাতার জানা নেই।

স্তন ক্যানসারসহ সব ক্যানসারই ভয়াবহ ঘাতক। প্রস্টেট ক্যানসারও একই রকম ভয়াবহ। ক্যানসার কোনো ফাজলামির বিষয় নয়। স্তন ক্যানসার, প্রস্টেট ক্রানসার, জরায়ু মুখের ক্যানসার কোনোটার সঙ্গেই যৌনতার সুড়সুড়ির কোনো সম্বন্ধ নেই। সবকটিই মানুষের প্রাণঘাতী। এর যে কোনোটি বা অন্য যে কোনো ক্যানসার যদি পরিবারের কোনো সদস্যের হয় তাহলে সেই ব্যক্তিকে তো বটেই পুরো পরিবারকে দুঃখ, যন্ত্রণা, অর্থনৈতিক চাপ, মৃত্যুর দিকে এক পা এক পা করে এগিয়ে যাবার নিষ্ঠুরতা, অসহায়তা, কেমোথেরাপির ভয়াবহ শারীরিক ও মানসিক যন্ত্রণার ভিতর দিয়ে যেতে হয়। একমাত্র ভুক্তভোগী ছাড়া এর পুরো যন্ত্রণা আর কারও পক্ষে বোঝা সম্ভব নয়, বলা সম্ভব নয়। স্তনক্যানসারে আক্রান্ত নারীর যদি অপারেশনের মাধ্যমে স্তন অপসারণও করা হয় তাহলেও বিশাল এক মানসিক সংকটের ভিতর দিয়ে তাকে যেতে হয়।

না, এসবের কোন ছাপ এই বিজ্ঞাপনে নেই। তাহলে কী আছে? আছে কিছু ফালতু কথা ও ফালতু দৃশ্য। নায়লা নইম কখনো ব্লাফ দেয় না বলে পিছন ফিরে শার্ট খুলে ফেলার মাধ্যমে যৌন ইংগিত দেয়ার বিরক্তিকর প্রচেষ্টা ছিল সবচেয়ে ফালতু। তাকে দিয়ে যে হালকা ভঙ্গীতে স্তন ক্যানসার বিষয়ে বলানো হয়েছে সেটাও বিরক্তিকর। আর স্তন ক্যানসার বিষয়ে বলতে হলে নায়লা নইমের মতো যৌন আবেদনময়ীকে দিয়ে বলাতে হবে কেন?

একজন চিকিৎসকের মুখ থেকে বরং ক্যান্সারের বিষয়ে জানার আগ্রহ থাকবে দর্শকদের এবং সেটাই হবে যথাযথ। স্তন ক্যান্সারের লক্ষণগুলো বিষয়ে বলা দরকার ছিল। নিজে কিভাবে স্তন পরীক্ষা করতে হয় সেটিও ভালোভাবে বুঝিয়ে বলার দরকার ছিল। প্রাথমিক অবস্থায় ধরা পড়লে এ রোগ থেকে যে মুক্তি পাওয়া সম্ভব সেই ম্যাসেজটিও তো ঠিকভাবে দেওয়া হয়নি। আর এই স্তন পরীক্ষায় বোন, মা, খালা, বা অন্য কোনো নারীই তো সাহায্য করতে পারেন। সেখানে বয়েজদের উদ্দেশ্যে নায়লার স্তন পরীক্ষার চেকমেট হবার আহ্বান জানানোর ব্যাপারটি ছিল সর্বোচ্চ মাত্রার ইতরামি ও মুর্খামি।

Shanta 2
শান্তা মারিয়া

স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত নারীদের গড় বয়স হলো ৪৩। তারমানে মধ্যবয়সী নারীরাই সাধারণত এতে আক্রান্ত হন। বিজ্ঞাপনে যদি মডেল ব্যবহার করা একান্তই দরকার বলে মনে হয় তাহলে একজন মধ্যবয়সী নারীকে নেওয়া চলতে পারত। স্তন ক্যানসারের মতো এমন একটি বেদনাবহ সিরিয়াস বিষয়ের জন্য নায়লা নইমের মতো চটুল ভঙ্গীর মডেল যে বেমানান সেটা বোঝার মতো বুদ্ধি নির্মাতার হয়নি।

কারও জন্যই এই রোগ প্রার্থনা করি না, নির্মাতার জন্যও নয়। তবু এ কথা না ভেবে পারছি না যে, যদি কখনও নির্মাতা নিজে অথবা তার কোনো স্বজন এই ভয়াবহ রোগে আক্রান্ত হয় (চাই না সেটা হোক)একমাত্র তখনই তার মাথায় ঢুকবে স্তন ক্যানসার কি বস্তু। যাবতীয় যৌন ইংগিত সেদিন অবান্তর মনে হবে তার নিজের কাছেই। কি যাতনা বিষে বুঝিবে সে কিসে, কভু আশীবিষে দংশেনি যারে।

শেয়ার করুন:
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
    5
    Shares
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.