এতো লজ্জা লইয়া জাতি কী করিবে?

সাদিয়া নাসরিন: এই একখান চল চালু হইয়া গেল। “আমি লজ্জিত, জাতির কাছে ক্ষমা চাই” ব্যাস ! কিউট জঙ্গির কিউট বাপের কিউট ন্যাকামি।

ছেলে রাগ করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেছে চারমাস আগে। বাবা মা ধরেই নিয়েছেন, ছেলে রাগের মাথায় মালয়েশিয়া পর্যন্ত চলে গেছে। রাগ পড়ে গেলে ফিরে আসবে। আর একজন নাকি ছেলের রুমে মাঝে মাঝে ঢুকতো। কী নিরুদ্বেগ পেরেন্টিং!!!

Sadia 3আর একদল আরো এক কাঠি উপরে। “আমার ছেলে নিজের হাতে ভাত খেতে জানতো না” “আমার ছেলে তেলাপোকা দেখলে ভয় পেতো” কেউ পাউরুটি নসিলা লাগিয়ে বসে ছিলেন ছেলে এসে খাবে বলে, ছেলে আর আসেনাই।

ভাইলোগ, ন্যাকামি বন্ধ করেন এলা। স্বীকার করেন নিজের জীবনের দুই নম্বরি নিয়া এত ব্যস্ত ছিলেন যে ছেলের সামনে বুক সিধা কইরা দাঁডাইতে পারেন নাই কোনদিনই। ছেলের চোখে চোখ রেখে কথা বলার, শাসন করার নৈতিক জোর আপনি হারাই ফেলছিলেন। কারণ, সন্তানরে সোহাগ করার মতো সময় আপনি পান নাই। “সৎ পথে চলো, সত্য কথা বলো” এসমস্ত কথা ছেলেরে বলার মতো মানসিক শক্তি আপনের ছিলো না, কারণ সেই এক্সাম্পল আপনি সৃষ্টি করতে পারেন নাই।

ট্রান্সপারেন্সি বা ডেমোক্রেসি কি জিনিস আপনার সন্তানরা জানে না। আপনার রোজগার আর খরচের খাত তার কিউরিসিয়াস মাইন্ড কখনো সখনো জানতে চাইতো। তাই ঘুষের সমাজে সন্তানের হাতে দামি ডিভাইস আর এটিএম কার্ড তুলে দিয়ে মুখ বন্ধ রেখেছেন যেন তারা কোনদিন হঠাৎ ফুলে উঠা মানিব্যাগ এর রহস্য জানতে না চায়। আপনার পোলাও আপনারে বিব্রত না করে বন্ধু বান্ধব নিয়া নিয়মিত ডাইন আউটিং করে। কিন্তু ডাইনিং টেবিলে ফ্যামিলি ডাইনিং কী জিনিস সে জানে না।

Gulshan Attack 1আপনার ইংলিশ পোলা বাংলা বলতে পারে না। লালন চিনে না, হাসন জানে না, রাধা-রমণ তো দূর কি বাত। বিজয় দিবস আর স্বাধীনতা দিবসের মধ্যে গোলমাল প্রায়ই করে ফেলে! আপনি আবার এই কিউট ভুলগুলা খুব এনজয় করেন। স্বাধীনতা, বঙ্গবন্ধু আর মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে কথা বলতে আপনাদের ইংলিশ মিডিয়াম পোলাপাইনের খুবই এলার্জি। রবীন্দ্রনাথ,জীবনানন্দ তো জানেই না, শেক্সপিয়রও ঠিকঠাক মতো শেখেনাই এরা।

তবে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ নাকি ঠিকঠাক মতো পড়ে। পোলার টেবিলে ইদানিং একটা ইংরেজি কোরানও দেখছিলেন আপনি। আপনি নিশ্চিন্ত হয়ে ভাবছিলেন, আপনার পাপ কাটা যাইতেসে ছেলের পূণ্যে।

এক পুরুষ আগেও ছাপোষা কেরানী অথবা চাষি গেরস্ত ঘরের মানুষ আপনি হঠাৎ বড়লোক হইলেন। কিন্তু বড়লোকির সাথে তো এডাপ্ট করন লাগবো। সেইটা করতে পারেন নাই বইলা নির্লজ্জের মতো বলেন, বিশ বাইশ বছরের বুড়া ধামড়া হাতে ধরে ভাত খাইতে জানে না। মাম্মি’স বয় মাম্মিরে ছাড়া কোথাও যায় না। এতেই আপনি এবং আপনারা কিউট জঙ্গিদের বাবা মা’ রা খুশিতে বাকবাকুম। আপনাদের কিউট বলদরা এত “ভালো” যে প্রেম পর্যন্ত করে নাই। কিন্তু তলে তলে যে এরা সত্তরটা হুরের জন্য লাইনে দাঁড়াইসে সেই খবরটা আর রাখেন নাই। বুঝলাম আপনারা শখ কইরা বলদ বানায়া নিশ্চিন্ত থাকছেন।

কিন্তু আপনাদের কিউট বলদ তো আপনাদের চক্ষে আঙুল দিয়া দেখাই দিল, সঠিকভাবে জানাইতে পারলে তারা নিজের হাতে আস্ত মানুষ জবাই করতে পারে। একটা দুইটা না বিশ বাইশটা !!!! গোটা দেশটারে তামা তামা কইরা দিল এক রাইতেই আপনাদের নসিলা খাওয়া, তেলাপোকা ভয় পাওয়া জঙ্গি পোলারা।

আর আপনারা কিছুক্ষণ পর পর খালি লজ্জা পান, আর দু:খিত হন। কিছু করার নাই, পোলা জঙ্গি হিসেবে গুলি খাইয়া মরসে। তবে কারিশমাটিক ব্যাক আপ দিতে পারলে আপনার পোলাও হিরো হিসেবে ম্যানেজ হইয়া যাইতো। তখন তো আপনার কিউট জঙ্গি পোলাই হইতো বাংলাদেশ।

এখন এত লজ্জা, এত দু:খ লইয়া জাতি কী করিবে?

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনি কিভাবে এতোটা শিওর হলেন । ওনারা নিজেদের সন্তানের প্রতি যথেষ্ট কেয়ারফুল ছিল ?

আগে থেকেই চিনতেন ? পূর্ব পরিচিত ?

সন্তানের সফলতার ক্রেডিট নিবেন আর খারাপ কাজের দূর্ণাম নিবেন না !!!!!

Excellent write up. I think these parents also had some kind of hateful feeling against non-muslims. If Bangladesh wants to find the reasons for this disaster, they should investigate deeper into their upbringing and the source of hate. Victimhood is one narrative which is popular among muslims, and found to primary reason for terrorism. Country can make laws to enforce correct upbringing by monitoring through govt. machinery. In many western countries, Japan thats the norm. That way not only bangladesh will get rid of this menace, it will get healthy, progressive, intelligent future citizens with rational thoughts.

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.