বউ পিটানো একটি “স্মার্ট” কাজ!

মারজিয়া প্রভা: আবুসসাউদ অনুযায়ী, হজরত সা’দ ইবনে রাব্বি কি কারণে তার স্ত্রীকে চড় দিয়েছিল একদিন। স্ত্রী গিয়ে সোজা তার বাবার কাছে অভিযোগ করে। পিতা যুবায়ের রাঃ কন্যাকে নিয়ে মুহাম্মদ সাঃ এর কাছে যায়। পুরো ঘটনা বর্ণনা করে। মুহাম্মাদ সঃ বলেন, সা’দ যতটা জোরে স্ত্রীকে থাপ্পড় দিয়েছে, স্ত্রীও তাকে ততটা জোরে থাপ্পড় মারার অধিকার রাখে। মেয়ে আর বাবা খুশি মনে বাড়ি ফিরছিল। তখনই উপর থেকে মুহাম্মদের জন্য আল্লাহ আয়াত পাঠায় । এভাবেই তৈরি হয় সুরার নিসার ৩৪ নাম্বার আয়াত।

2মুহাম্মদের মতে, “আমি চেয়েছি একরকম, আল্লাহ পাক চেয়েছেন আরেকরকম। আল্লাহ যা চান, তাই উত্তম”। কেল্লাফতে! সেই থেকে প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেল “পুরুষ নারীর কর্তা”। এবং প্রথমে বুঝাও, শয্যা আলাদা কর এবং প্রহার কর।

১৪০০ বছর আগের কথা।

আর এটা ২০১৬ সাল।

পাকিস্তানে ইসলামি কাউন্সিল জারি করল, বউ পিটানো যাবে। “হাল্কা মাইর” দিয়ে সোজা বানাইতে হবে তারে। সে স্বামীর মতামত অনুযায়ী ড্রেস না পিন্দালে, ধর্মীয় কারণ ছাড়া সেক্স করতে আগ্রহী না হলে এবং ঋতুস্রাবের পর গোসল না করলে তাকে পিটানো জায়েজ হয়ে যাবে।  প্রথমে অবশ্য পিটানো না কিন্তু! প্রথমে বুঝাবে, তাও না বদলাইলে কথা বন্ধ করে দিবে, একলগে বিছানায় শুবে না। তারপরেও চেঞ্জ না হইলে সোজা মাইর। হাল্কা কঞ্চি দিয়ে মাইর। বেশি জোরে মারা যাবে  না! সুরা ৩৪ আয়াতের আক্ষরিক প্রতিফলন করেছে এরা।

কুরআন একাই খালি বউ পিটানোর কথা বলে নি, বলেছে ওল্ড টেস্টমেন্টও। জেনেসিস ৩:১৬ তে বলে দিয়েছে “আদম হচ্ছে ইভের মাস্টার।“

Marzia Prova
মারজিয়া প্রভা

জেনেসিস ২:১৬ তে বলা আছে, “সারা ইব্রাহিমকে অনুমতি দিয়েছিল নারী চাকরের সঙ্গে ইন্টারকোর্স করতে”

সবচেয়ে কঠিন কথা লেখা আছে, ইফেসিয়ানস ৫:২২-২৪ এ। সেখানে লেখা আছে “স্ত্রীরা তোমরা আত্মসমর্পণ কর তোমাদের স্বামীদের কাছে। স্ত্রীগণ, স্বামীরা তোমাদের মাথা। পাদ্রি যেমন চার্চের  রক্ষক, স্বামীরা তোমাদের শরীরের ত্রানকর্তা”।

বাইবেলের করিনথিয়াস ৭:৪ এ আবার বলা, “স্ত্রীরা তোমাদের শরীরে তোমাদের নিজেদেরও অধিকার নেই, তোমাদের স্বামী ছাড়া”

আব্রাহামিক রিলিজিয়নের একটি ইসলাম। অন্য দুটি ইহুদি আর খ্রিস্টান। কোন একটা ধর্মগ্রন্থে একবারও বলা হয় নি, নারী তোমার পুরুষের প্রতি কর্তৃত্ব করার অধিকার আছে। তুমিও তোমার স্বামীর প্রভু হতে পারে। একটা ধর্মগ্রন্থ যাকে মানুষ হাজার বছর ধরে বিশ্বাস করে আসে, সেখানে নারীর অধিকার দিয়েছে সীমিত। স্রষ্টা তার আরেক সৃষ্টির প্রতি এতটাই বিরূপ হতে পারে!!! ভাবতে ইচ্ছে হয়না আমার।  

ইনিয়ে বিনিয়ে অনেকেই এই আয়াত এবং বানীগুলোকে প্রমাণ করেছে, বউকে আগেই মারতে বলেনি। আর মারা মানেই রক্ত বের করা না। না বুঝলে একটু “টাইট” রাখার জন্য মারধোরের কথা বলা হয়েছে।

আচ্ছা তবে পুরুষের বেপরোয়াকে “টাইটে” রাখার জন্য নারীর “হাল্কা মাইর” দেবার অধিকার কেন নেই? একবারও একটি ধর্মগ্রন্থ কেন বলল না, তুমিও বুঝাও, না বুঝতে চাইলে বিছানা আলাদা কর, তারপরেও না বদলালে প্রহার কর।

কি যে বলি আমি! পুরুষের তো সবকিছুই মাফ! বিয়ের পর অন্য নারীর কাছে গেলেও! ওল্ড টেস্টোমেন্টে লেভিটিকাস ১৮ থেকে ২০ মতে, পুরুষ ইচ্ছেমত নারী গমন করলেও ক্ষতি নেই।

আমাদের পুরো পৃথিবীটার মাথা হয়ে গেছে ডানপন্থী কিছু রাষ্ট্র। কট্টর ইহুদিপন্থী ইসরায়েল থেকে শুরু করে কট্টর ইসলামপন্থী সৌদি আরব কেউই বাদ নয়! পুরো ওয়ার্ল্ডকে যখন ঘুণে ধরা কিছু আয়াত, বানী কিনবা বিশ্বাস দিয়ে কন্ট্রোল করার চিন্তাভাবনা করা হয় তখন এই ধরণের ফতোয়া তো অবিশ্বাসের কিছু না!

শুধু তাই কেন! এই ফতোয়া দেবার আগে কি মাইর বন্ধ ছিল! তখন হয়ত আইনের আশ্রয় নেওয়া হত, এখন তাও নেওয়ার রাস্তা বন্ধ! “আইন”! আহা রে! কি আমার “আইনের শাসন” ই বা ছিল পাকিস্তানে! তাইলে মুখাতারান মাইকে ছোট ভাইয়ের অপরাধে গ্রামের সালিশে গণধর্ষণ করা হয়?  এই হচ্ছে পাকিস্তান!

পাকিস্তানে হাল্কা পিটানির আইন নিয়ে আমার কোন দুশ্চিন্তা হবার কথা না। আমার চিন্তা পাকিস্তানপ্রেমী মানুষদের জন্য। যারা বাংলাদেশের মাটিতে থেকে গতকিছুদিন আগে চট্টগ্রামে লিফলেট বিলি করে বলেছে, নারী কর্মী দেশে থাকা যাবে না। অফিস থেকে তাদের খুব শিঘ্রই অব্যাহতি দেওয়া হোক।

আমার চিন্তা সৌদিপ্রিয় লোকজন নিয়ে। যে দেশে  দেখানো হয় কিভাবে বউকে পিটাতে হবে তার কলা কৌশল! (http://www.independent.co.uk/news/world/middle-east/saudi-family-therapist-gives-advice-on-how-to-beat-your-wife-a7024091.html)

আমার চিন্তা ডঃ জাকির নায়কপ্রিয় মানুষদের। যে তার ভিডিওতে বলেছে, মা তার ছেলেকে ছয়তলা ছাদ থেকে লাফ দিলে পিটালে, তাকে মার দেওয়া উচিত কিনা! যেখানে বলিষ্ঠভাবেই তিনি বলেছে পুরুষ নারীদের শাসন করার অধিকার রাখে, কারণ সেখানে অভিভাবকত্ব এর ব্যাপার রয়েছে।

কিন্তু আমি কি করে এই মানুষদের বুঝাব!! হাজবেন্ড কখনই স্ত্রীর অভিভাবক নয়। সে সঙ্গী। লাইফ পার্টনার বলি আমরা। স্ত্রীর গায়ে হাত তোলার ন্যূনতম অধিকার তার নেই।

বউ কি কেবল হুজুর পেটায়? বউ কি কেবল রিকশাওয়ালা পেটায়? ভাল মানুষের মুখোশ পরা নারী স্বাধীনতার কথা বলা লোকজন কি বউ পেটায় না? ওরাও পিটায় কখনও হাতে, কখনও মুখে।

জনি ডেপ বউ পিটায়। চার্লি শিন বউয়ের গলা চেপে ধরে। আমার দেশে আরেফিন রুমি ফুসলিয়ে কাজের মেয়ের সাথে আকাম করে। স্মার্ট লোক মাত্রই বউ পিটায়! বউকে শারীরিক, মানসিক এবং যৌন নির্যাতন করা আসলে একটা সংস্কৃতি। আর তাতে আলো বাতাস দেয় ধর্মীয় আইডোলজি। সেই সংস্কৃতি বহন করছে আমাদের পুরুষেরা। যতই শিক্ষিত হোক, শেকড় কি ছাড়া যায়!

 

শেয়ার করুন:
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
    8
    Shares
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.