অভিজিৎ নেই, অভিজিতেরা আছে

0

Abhijit allইশরাত জাহান ঊর্মি: পরিচিত একজনের রেফারেন্সে বইটা কিনে উল্টে-পাল্টে দেখছিলাম। ভূমিকাটা দারুণ। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ….লিখেছেন….

পড়তে পড়তে কেন জানিনা একটা দীর্ঘনি:শ্বাস পড়ে। দুটো প্লাস্টিকের চেয়ারে আমার কয়েক ঘন্টার আবাস। ঘন্টায় ঘন্টায় লাইভ। পাশেই নজরুল মঞ্চে কবি যশোপ্রোর্থী কারো একজনের বই নগ্ন হচ্ছে। কয়েকটা টিভি ক্যামেরার বিরসবদন রিপোর্টার, অনলাইনের কয়েকটা ক্যামেরা আর কবির আত্নীয়স্বজনসহ বই নগ্ন করার কাজটি চলছে। মেলা চলছে। বাতাসে একটা বেদনার সুর। অগুনতি মানুষ আসে। আর আমি ভাবি, এদের মধ্যেই কি লুকিয়ে থাকে খুনী? অভিজিত রায়ের খুনী, হুমায়ূন আজাদের খুনী?

হাঁটতে হাঁটতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যাই। শুদ্ধস্বর-এর সামনে কালো কাপড়ে শোক। পরিচিত একজনকে পাই, বললেন, বই কিনলাম। অভিজিৎ রায়ের। তিনটা বই। দেখি কি লিখেছিলেন ভদ্রলোক, যার জন্য এই অবস্থা…

আলোচনা এগোয় না। কথা বলে ঠিক আরাম পাওয়া যায় না। আমরা দুজন দুজনের থেকে যেন পালাই। আবারও ফিরে আসি চেয়ারে। কেন জানি না, হুমায়ূন আজাদের কথা খুব মনে পড়ে। তখন আমরা রোকেয়া হলে থাকি। বসন্তের বাতাসে বন্ধুর বাড়ির ফুলের গন্ধ আসা  সেই সন্ধ্যাটি। টেলিভিশন রুমে আমাদের হুমড়ি খেয়ে পড়া। মৃত্যুতে, হত্যাতে, চলে যাওয়াতে আমাদের চমকানো বন্ধ হয়েছে সেই কবেই।

কী মনে হয়, দুচারজনের সাথে কথা বলি। প্রশ্ন করি, অভিজিৎ রায়ের মৃত্যুতে কী প্রতিক্রিয়া? তাদের কেউ কেউ সিকিউরিটির গুষ্ঠি উদ্ধার করেন, কেউ কেউ সরকারের, আর কেউ কেউ জামায়াত-শিবিরের।

পিসিআর এর ফোন এলে আবারও চুল আঁচড়ে মাইক্রোফোন নিয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর আগে আমার শুধু পরিচিত ঐ ভদ্রলোকের কথা মনে পড়ে, অভিজিৎ এর তিনটা বই কিনলাম, দেখি কি লিখেছেন……

 

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

লেখাটি ২৯৪ বার পড়া হয়েছে


উইমেন চ্যাপ্টারে প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় উইমেন চ্যাপ্টার বহন করবে না। উইমেন চ্যাপ্টার এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.