ওই মেয়েটাকে বলছি……..

Haat 2ইরফানুর রহমান রাফিন: “গতকাল তুমি টিএসসিতে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছিলে। গায়ে আগুন ধরিয়ে। গতকাল, ১৭ই ডিসেম্বর, বিজয় দিবসের একদিন পর। স্কুল লাইফ থেকে একটা ছেলেকে ভালবাসো তুমি। সেও ডিইউতে পড়ে। কয়েকদিন ধরে ওর সাথে ঝগড়া চলছিলো তোমার। সেই কারণেই হয়তো তুমি আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলে। কিন্তু পারো নি। তোমার চিৎকার শুনে মানুষজন এসে উদ্ধার করেছে। এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে কাতরাচ্ছো।

কেনো করলে এটা? কাছের মানুষদের আঘাত পাওয়ার অভিজ্ঞতা আমার আছে। জানি খারাপ লাগে। খুব কষ্ট হয়। তাই বলে তুমি আত্মহত্যার চেষ্টা করবে কেনো? তুমি মরলে অই ছেলের কিচ্ছু যায় আসবে না, কয়েকদিন পরেই ক্যাম্পাসে অন্য মেয়ে নিয়ে ঘুরবে, ফূর্তিফার্তা করবে। মাঝখান থেকে তুমি শুধু শুধু হারিয়ে যাবে।

অথচ তুমি ডিইউ’র টুরিস্ট সোসাইটির কালচারাল সেক্রেটারি। নিশ্চয়ই তুমি খুব ভালো কবিতা লিখতে পারো। অথবা ছবি আঁকতে। অথবা গান গাইতে। অথবা আবৃত্তি করতে। অথবা বিতর্ক করতে। তোমার মতো একটা মেয়ে কেনো আত্মহত্যা করবে, সামান্য একটা ছেলের জন্য, কেনো করবে?

তুমি ভুল করেছো। আমরা সবাই করি। না করলে আমরা ফেরেশতা বা শয়তান হতাম, কিন্তু করি আমরা, কারণ আমরা মানুষ।

তোমার শরীরের শতকরা ২৮ শতাংশ পুড়ে গেছে। কপাল ভালো হলে এই যাত্রায় বেঁচে যাবে। এরপর কি করবে? দ্যাখো, ৭০০০০ বছর আগে কগনিটিভ রেভল্যুশন হোমো স্যাপিয়েন্সকে বের করে এনেছিলো এনিমেল কিংডম থেকে, মানুষ করেছিলো তাকে। তোমার শরীরের সবচেয়ে মূল্যবান অংশ তোমার মস্তিষ্ক। অইটার সৌন্দর্য যে বুঝবে সেই তোমার যোগ্য। বাহ্যিক রূপ সাময়িক।

হেলেন অফ ট্রয়ের হাড্ডিও আজ আর নেই। বাহ্যিক গুণও সাময়িক। দরিদ্র নারায়ণের সেবা করা জমিদারদেরকে আমরা ভুলে গেছি। যা কিছু বাহ্যিক তার কিছুই থাকে না। আমরা এমনি এসে ভেসে যাই, কবরে আমাদের মাংস মাটির সাথে মিশে যায়, সময়ের কাছে দেয়া সাক্ষ্য হয়ে থেকে যায় শুধু কি কাজ করেছি আর কি কথা ভেবেছি।

মানুষ এই কারণেই পশুর চেয়ে আলাদা, স্যাপিয়েন্স। পশু পুরোপুরি প্রকৃতি বা ঈশ্বরের সৃষ্টি, মানুষ অংশত, আর অংশত সে নিজেই নিজেকে সৃষ্টি করে চলে নিরন্তর। হয়তো তাই মনসুর হাল্লাজের কণ্ঠস্বরে নিজেকে প্রকাশ করেছিলেন করুণাময়, সে চিৎকার করে বলেছিলো আমিই সত্য, আনাল হক! এই সৃষ্টি করে চলাই জীবনের একমাত্র উদ্দেশ্য। এই জীবনকে কেড়ে নেয়ার অধিকার কারো নেই। এমনকি নিজেরও না”।

শেয়ার করুন:
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.