কোথায় সার্ক, সবার মুখে কুলুপ কেন?

Nepal gasলীনা হাসিনা হক: সন্ধ্যার মুখে গেস্ট হাউজে ঢুকেই টের পেলাম বিদ্যুৎ নাই। প্রতিটি রুমে একটি করে বাতি সোলার পাওয়ারে চলছে! রাত ১০টায় বাতি আসবে। কাঠমান্ডুতে লোডশেডিং এর সিডিউল দেয়া থাকে মাস কাবারী, এলাকা ভিত্তিক।

কোনরকমে এক প্যাকেট রেডিমেড স্যুপ আর নুডুলস রান্না করে ডিনার সারলাম। গ্যাসও সীমিত। এদিকে গ্যাস নাই বলে হিটার নাই। তাপমাত্রা ৬ এর কোঠায় দেখাচ্ছে এখন রাত সাড়ে দশটায় মানে হলো ভোররাতে আরো নামবে। স্যুয়েটার পরে দুই লেপ গায়ে দেবার পরেও আমার কুই কুইতে মায়াপরবশ হয়ে নেপালী সহকর্মী বুদ্ধি দিলো গরম জল মিশিয়ে একটু লেবু চিপে এক কাপ কুকরি রাম নাকি ঠাণ্ডা তাড়ানোর জন্য ধন্বন্তরি।

যেই কথা সেই কাজ। ভগবান রামের আশীর্বাদে শীত তেমন টের পেলাম না, ঘুম তো ভালোই হলো। সকালে অফিস যাওয়ার প্রস্তুতি নিতে গিয়ে সভয়ে টের পেলাম আমার বাথরুমের কলে গরম জল আসা হঠাৎই বন্ধ হয়ে গেলো! আধভেজা আমি শীতে কাঁপতে কাঁপতে গেস্ট হাউজের কেয়ার টেকারকে চিল্লিয়ে বললাম কিছু একটা করতে। সে বললো সোলারের গরম জল সম্ভবত শেষ!! গ্যাসে জল গরম করে আনছে কিন্তু মিনিট দশেক লাগবে।

মনে মনে বললাম, বেটা ততক্ষণে আমার রাম নাম সত্য হয়ে যাবে!!!

Nepal Electপাশের রুমে সহকর্মী ভেংকট নারায়ণ। ঠক ঠক তার দরজায়, উত্তর এলো, ‘গরম জল আছে ঠিকই, তবে আমি তোয়ালেতে, এখনো কাপড় পরি নাই’। বললাম, ‘রক্ষে করো বাপধন, আমিও তোয়ালেতে, তবে ভেজা! তুমি আমার রুমে গিয়ে আব্রূ রক্ষা করো, আমার তো জান বাঁচানো ফরজ হয়ে দাঁড়িয়েছে পিত:’!!

কোন রকমে তৈরি হয়ে হেয়ার ড্রায়ার দিয়ে চুল শুকাতে গিয়ে টের পেলাম বিদ্যুৎ নাই! ডাক ছেড়ে কাঁদতে ইচ্ছে করছিলো। এরপর অফিস পৌঁছলাম এক কিলোমিটার হেঁটে।

তাপমাত্রা মাত্র ৪ ডিগ্রি এবং আজ রোদ নাই। গৌরীশংকর থেকে বয়ে আসা হিমেল হাওয়ায় মাথা আমার জমে গিয়েছে এবং চুলগুলো সজারুর কাঁটার মতন দেখাচ্ছে। নাক আছে কিনা বোধ নাই, শুধু টের পাচ্ছি নাকের জল, চোখের জল একাকার। কমপক্ষে ১০০০ হাঁচি দিলাম!

কেউ বলে গরম জলে লেবু মধু, কেউ আনে কড়া কফি, আমার অবস্থা কেরোসিন! আবারো নেপালী কলিগ বুদ্ধি দিলো, রামই হচ্ছে একমাত্র উপায়। রাম-নাম জপতে জপতে বসের সাথে মিটিং এ বসলাম। কিছু সময় পরে বস বলেন, ‘তোমার সমস্যা কি’? বললাম, ‘আমি রাম ভক্তে পরিণত হয়েছি বস। জয় রাম’!!! যাই হোক অফিস শেষ করে বিউটি সেলুনে গিয়ে সজারুর কাঁটাকে বশে আনা গেলো।

Now, jokes apart. বুঝলেন তো কী অবস্থায় আছেন আমার নেপালী বন্ধুরা?? প্রতিদিনের জীবন এভাবেই পার করছেন তারা গত দুইমাস যাবত। ধন্য দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা!.

No one raising voice against Indian dadagiri!!!. long live SARRC or it is time for its burial????

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.