অভিনন্দন লাকী আক্তার

Luckyউইমেন চ্যাপ্টার: বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন গণজাগরণ আন্দোলনের নেত্রী লাকী আক্তার। এর আগে তিনি সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। অভিবাদন লাকী আক্তারকে, সুস্বাগতম রাজনীতিতে নতুন নারী নেতৃত্বকে।

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের ৩৭তম সম্মেলনে লাকীকে সভাপতি করে নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। ৬৩ বছর পেরিয়ে আসা সংগঠনটির তৃতীয় নারী সভাপতি হলেন লাকী। ষাটের দশকে ছাত্র আন্দোলনের নেতৃত্ব দেওয়া মতিয়া চৌধুরী সংগঠনটির প্রথম নারী সভাপতি। দ্বিতীয় নারী সভাপতি হিসেবে ২০০৩-০৪ সালে দায়িত্ব পালন করেছিলেন লুনা নূর।

বর্তমানে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী তাঁর অসাধারণ বক্তৃতার জন্য ডাকসু’র জিএস থাকার সময় ‘অগ্নিকন্যা’ বলে পরিচিত ছিলেন। ২০১৩ সালে শাহবাগ আন্দোলনে স্লোগানের জন্য জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লাকী পরিচিতি পান ‘অগ্নিকণ্ঠী’ হিসেবে।   

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের তিন সভাপতি মতিয়া চৌধুরী – লুনা নূর – লাকী আক্তার প্রত্যেকেই বৃহত্তর ছাত্র আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছেন, দিচ্ছেন। ষাটের দশকে মতিয়া চৌধুরী শিক্ষা আন্দোলনসহ পাকিস্তান শাসকদের বিরুদ্ধে ছিলো আতঙ্ক বাংলার ছাত্র তাকে ‘অগ্নিকন্যা’ বলেই জানতো। 

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে যৌন নির্যাতনের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা বৃহত্তর আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছেন ‘লুনা নূর’। এছাড়াও সমসাময়িক কালের সবগুলো আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছেন লুনা নূর।

শাহবাগ আন্দোলনে নতুন মেরুকরণ ছিল শ্লোগানে। এই শ্লোগানই মানুষের মনকে আলোড়িত করেছিল। শ্লোগানের ভাষা, নতুনত্ব সবকিছুই ছিল উল্লেখ করার মতো। বেশকিছু নতুন নেতৃত্ব বেরিয়ে আসে এই শ্লোগানের মাধ্যমে। লাকী আক্তার তাদেরই একজন। তার শ্লোগানের প্রতিধ্বনি ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বজুড়ে, আন্দোলনের নতুন মাত্রা যোগ হয় এতে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিও বাস্তব রূপ পায় এই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.