তোমার কি মা-বোন নেই?

FB_IMG_1431803590252
উম্মে ফারহানা মৌ

উম্মে ফারহানা মৌ: ২০০৩-২০০৪ সালের কথা, হলে থাকতাম তখন। সবার কাছে মোবাইল ফোন ছিল না। যাদের কাছে ছিল রাত-বিরেতে তাদের ফোনে আজেবাজে কল আসতো। আমার রুমমেটের এক বন্ধুর ফোনে এমন এক ফোনের অশ্লীল কথার জবাবে আপু জিজ্ঞেস করেছিলেন, ‘আমাকে ফোন করলি ক্যান, বাসায় তোর মা নাই?’ উত্তরে সেই ছেলে বলল, ‘মা তো বাপের সংগে — (মুদ্রণযোগ্য নয়)’।

ইভটিজারদের মা-বোন আছে কিনা প্রশ্নের জবাবে ‘মা-বোন আছে, বউ নাই’ উত্তর তো পুরনোই। অন্য কোন ছেলে তাদের এই প্রশ্ন করলে তারা সাফ জবাব দেয়, ‘আমাদের বোনেরা ওদের মতন না’। তার মানে তাদের বোনেরা তাদের সংজ্ঞা অনুযায়ী শালীনতা বজায় রাখে আর যে মেয়েদের তারা উত্যক্ত করছে সেই মেয়েরা তা রাখেনা বলেই পথেঘাটে অশ্লীল মন্তব্য শুনছে। এই ভিক্টিম ব্লেমিং ও নতুন নয়, মেয়েদের পোশাকের দোষ, চলাফেরার দোষ, জোরে হাসার দোষ। সব মেয়েদেরই দোষ।

যারা অশালীন ও মুদ্রণঅযোগ্য শব্দ ব্যবহার করেন না, তাদের চিন্তাও কিন্তু খুব ভিন্ন নয়। আমার চেনা এক স্বামীকে তার স্ত্রী প্রশ্ন করলেন, ‘তোমার বোনেদের বিয়ে হয়নাই, হবেনা? তাদের জামাইরা যদি তোমার মতন ব্যবহার করে, তোমার মা আমাকে যেমন চুপ করতে বললেন, তাদেরকেও কি সেই একই উপদেশ দেবেন?’ স্বামী বললেন, ‘আমার বোনেরা তোমার মতন হলে আমি নিজেই কেটে ভাসিয়ে দেব, জামাইয়ের কিছুই করা লাগবে না’। এই দেশটা পাকিস্তান নয়, অনার কিলিং নামে বোন হত্যা জায়েজ নয় এখানে, কিন্তু এই বক্তব্যে স্পষ্ট বোঝা যায় উদ্ধত পুরুষ কিভাবে নিজের কথার বিপরীতে কথা বলা নারীকে এমনকী হত্যাও করতে প্রস্তুত, সে নারী যেই হোক না কেন; বউ, মানে পরের মেয়ে হলেতো বটেই,বোন, মানে নিজের পরিবারের মেয়ে হলেও। আর ‘তোমার মত’ বলে বউ এর প্রতিবাদী চরিত্রকে কাল রঙে রাঙানোর অপপ্রয়াস তো আছেই।

কয়েকদিন আগে সুখী নামের মেয়েটির চোখ তুলে নেবার ঘটনায় বিচলিত হয়ে ফেসবুকে একটা পোস্ট দিয়েছিলাম। বুঝবার সুবিধার্থে হুবহু তুলে দিচ্ছি………………

নানীর কাছে শোনা গল্প:

এক মেয়ের বিয়ে দেওয়ার সময় বাপ লিখিত শর্ত দিল বরপক্ষকে; হাতে মারা যাবে না, লাঠি দিয়ে পেটানো যাবে না, চিমটি কাটা যাবে না, গাল পাড়া যাবে না ইত্যাদি ইত্যাদি সম্ভাব্য সকল নির্যাতন বন্ধ করার জন্য। বরপক্ষ রাজি হল এবং বিয়ের পর আইনী মোকাবিলার ভয়ে উল্লেখ্য কোন পদ্ধতিতেই আর মেয়েকে অত্যাচার করতে পারেনা। শেষে তারা আবিষ্কার করলো মাথা দিয়ে ঢুশ দেওয়ার কথা শর্তাবলীর কোথাও লেখা নেই। জামাই-শাশুড়ি-ননদ সবাই মিলে বউকে ঢুশ মারতে লাগল। মেয়েটা তখন কেঁদে কেঁদে বলল, “বাজান, তুমি ক্যান যে হুশ কইরা ‘ঢুশ’টা লেইখ্যা দিলানা”।

আজকের স্টেটাস আপডেট : সকালবেলায় পত্রিকায় দেখলাম,সুখী আর কখনো দেখতে পাবেনা।

আমরা কেন আমাদের মেয়েদের বিয়ে দেই যখন মেয়ের নাম রাখি ‘সুখী’? জামাইবাড়ি গিয়ে কে কবে সুখী হয়েছে?

তো এই পোস্টে একজন এসিস্ট্যান্ট কমিশনার মন্তব্য লিখলেন,

Jamai j oi bou dia sukhi kina aitau Jante Hobe.. ? Umme Farhana 🙂

এই উচ্চশিক্ষিত আমলা ভদ্র(?!)লোকও মনে করেন জামাই যদি বউ নিয়ে সুখী না হয় তাহলে তার চোখ উপড়ে নেওয়া যেতে পারে। আমি উনাকে আনফ্রেন্ড করবার আগে নাম উল্লেখ করে মন্তব্য লিখলাম,

“— ভাই, অবশ্যই সুখীর স্বামী সুখী ছিলেন না, বউ বাপের বাড়ি থাইক্যা টেকা আইনা না দিলে সুখী হয় ক্যামনে বেডা মাইনষে?চক্ষু তুইল্যা নিছে ভাল করছে, স্তন কাইটা নিবে, যৌনাঙ্গ জখম করবে, আগুনের ছ্যাঁক দিবে, তাদেরে বাহবা দেওনের লাইগ্যা আপনেরা ত আছেনই। আপনেরাও করবেন, বউ এক বেলা শারীরিক মানসিক আর্থিক কিংবা যৌন সুখে আপনেদেরে সুখী করতে না পারলে সুখীর জামাইয়ের মতন ‘উচিত শিক্ষা’ বউরে দিবেন। শাস্তি দূরের কথা, ‘টেমিং অব দ্য শ্রু’ ক্যাটাগরিতে পুরষ্কারও পায়া যাইতে পারেন, হাজার হোক সরকারী আমলা আপনেরা(আপনেদেরেত গ্রেফতার করার জন্যেও সরকার বাহাদুর অনুমতি দ্যান না,অপরাধ যতই করেন না ক্যান)। সুখীর জামাইদেরে প্রমোট করবার লাইগ্যা আপনেদের মতন লোকেরা বহু আগে লিখ্যা গেছে ‘পুড়ল মেয়ে উড়ল ছাই, তবেই মেয়ের গুণ গাই’।

আপনেদের সুখেই আমাদের সুখ ভাই। আপনেদেরে সুখী করার জন্যে আমাদের জীবন নিবেদিত।”

এই মন্তব্য পড়ে তার লজ্জা হয়নি বলেই মনে হয়, কারণ তিনি এতে ‘লাইক’ দিয়েছেন দেখলাম।

Posterফেসবুকে এই ছবিটি শেয়ার দেবার পর অনেকেই লাইক দিলেন, কিন্তু আমার শ্বশুরবাড়ির কেউ (সাত আটজন বৈবাহিক আত্মীয় আমার বন্ধুতালিকায় আছেন) দিলেন না, কাকতালীয়ভাবে আমার শ্বশুরালয় ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে।তারা হয়ত ধরে নিয়েছেন শেয়ারের কারনে তাদের মর্যাদাহানি হয়েছে, আমি হয়ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বউ হিসেবে তাদের অপমান করতে কিংবা উপদেশ কপচাতে এটি শেয়ার দিয়েছি। কিন্তু এই ছবিতে যদি ‘ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ’ লেখা থাকত তাহলেও আমি তা অতি গর্বের সংগে শেয়ার দিতাম।আমার জন্মস্থানের পুলিশবিভাগের সচেতনতা দেখে আনন্দিতই হতাম।

কিন্তু বউ বলে কথা। বউ যে বোবা নয়, কথা কইতে পারে, বধির নয়, সব শোনে, অন্ধ নয়, সব দ্যাখে, অশিক্ষিত নয়, লিখতে-পড়তে পারে, বুদ্ধিহীন জড়-ভরত নয়, বরং বেশ ভালই বোঝে এটাই শ্বশুরকুলের জন্য অস্বস্তির কারণ।

সুখীর শ্বশুরবাড়ির লোকেদের জিজ্ঞেস করুন, বলবে সুখী দুর্বিনীত ছিল, বেয়াদব ছিল। তাদের মেয়ের চোখ কেউ তুলে নিলে কেমন লাগবে প্রশ্ন করে দেখুন, বলবে তাদের মেয়েরা কক্ষনো এমন উদ্ধত নয়, তারা তাদের মেয়েদের ‘ভদ্রতা’ শিখিয়েছে, ‘আদব লেহাজ’ শিখিয়েছে। টাকার কথায় আসুন, তারা তাদের বোনেদের সুখ খরিদ করবার জন্যে কত যৌতুক দিয়েছে তার হিসাব দেবে। সুখী তার বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনেনি, সাজা তো তার প্রাপ্যই হয়েছে তাই না?

নারীকে মানুষের সম্মান যারা করতে পারেনা তাদেরকে মা বোনের দোহাই দিয়ে লাভ কি। মা বোন জায়া কন্যা, সম্বন্ধ যাই হোক, মেয়েটি একটি মানুষ, এটুকু যারা ভাবতে না পারে তাদের জ্ঞানচক্ষু কোনদিনও উন্মোচিত হবে না।

ফেইসবুকে এই ছবিটি শেয়ার দেবার পর অনেকেই লাইক দিলেন, কিন্তু আমার শ্বশুরবাড়ির কেউ (সাত আটজন বৈবাহিক আত্মীয় আমার বন্ধুতালিকায় আছেন) দিলেন না, কাকতালীয়ভাবে আমার শ্বশুরালয় ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে।তারা হয়ত ধরে নিয়েছেন শেয়ারের কারনে তাদের মর্যাদাহানি হয়েছে, আমি হয়ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বউ হিসেবে তাদের অপমান করতে কিংবা উপদেশ কপচাতে এটি শেয়ার দিয়েছি। কিন্তু এই ছবিতে যদি ‘ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ’ লেখা থাকত তাহলেও আমি তা অতি গর্বের সংগে শেয়ার দিতাম।আমার জন্মস্থানের পুলিশবিভাগের সচেতনতা দেখে আনন্দিতই হতাম।

কিন্তু বউ বলে কথা। বউ যে বোবা নয়, কথা কইতে পারে, বধির নয়, সব শোনে, অন্ধ নয়, সব দ্যাখে, অশিক্ষিত নয়, লিখতে-পড়তে পারে, বুদ্ধিহীন জড়-ভরত নয়, বরং বেশ ভালই বোঝে এটাই শ্বশুরকুলের জন্য অস্বস্তির কারণ।

সুখীর শ্বশুরবাড়ির লোকেদের জিজ্ঞেস করুন, বলবে সুখী দুর্বিনীত ছিল, বেয়াদব ছিল। তাদের মেয়ের চোখ কেউ তুলে নিলে কেমন লাগবে প্রশ্ন করে দেখুন, বলবে তাদের মেয়েরা কক্ষনো এমন উদ্ধত নয়, তারা তাদের মেয়েদের ‘ভদ্রতা’ শিখিয়েছে, ‘আদব লেহাজ’ শিখিয়েছে। টাকার কথায় আসুন, তারা তাদের বোনেদের সুখ খরিদ করার জন্যে কত যৌতুক দিয়েছে তার হিসাব দেবে। সুখী তার বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনেনি, সাজা তো তার প্রাপ্যই হয়েছে তাই না?

নারীকে মানুষের সম্মান যারা করতে পারেনা তাদেরকে মা বোনের দোহাই দিয়ে লাভ কি। মা বোন জায়া কন্যা, সম্বন্ধ যাই হোক, মেয়েটি একটি মানুষ, এটুকু যারা ভাবতে না পারে তাদের জ্ঞানচক্ষু কোনদিনও উন্মোচিত হবে না।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.