জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খেয়ে কানাডায় ২৪ নারীর মৃত্যু !

pill উইমেন চ্যাপ্টার ডেস্ক: জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিলের জনপ্রিয় কানাডিয়ান ব্র্যান্ড ‘ইয়াসমিন’ এবং ‘ইয়াজ’ সেবন করে কমপক্ষে ২৪ জন নারীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে কানাডা থেকে প্রকাশিত নতুনদেশ ডটকম নামের একটি বাংলা অনলাইন পত্রিকা।

নতুন দেশ জানায়, হেলথ কানাডার দলিলে মৃতের সংখ্যা ২৪ জন বলে উল্লেখ করা হলেও কানাডার একটি আদালতে দায়ের করা মামলায় ৪০ জনের মৃত্যুর কথা উল্লেখ করা হয়েছে। মামলার আর্জিতে বলা হয়েছে,এই সংখ্যাটি মূল ঘটনার উদাহরণমাত্র। প্রকৃতপক্ষে আরো অনেক বেশি প্রাণহানি ঘটেছে যার সঠিক পরিসংখ্যান কারো কাছেই নেই।

হেলথ কানাডার তথ্যানুসারে ২০০৭ সালে বাজারে আসার পর জনপ্রিয় কানাডিয়ান ব্র্যান্ড ‘ইয়াসমিন’ এর কারণে ১৫ জন এবং ‘ইয়াজ” পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ায় নয়জন নারী মারা গেছে। ‘ইয়াসমিনের’ প্রতিক্রিয়ায় মারা যাওয়া নারীদের মধ্যে আটজন হচ্ছে বিশ বছরেরও কম বয়সী। তার মধ্যে একজনের বয়স মাত্র ১৪।
বহুজাতিক কোম্পানি ‘বেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস’ এর উৎপাদিত জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল ‘ইয়াসমিন’ এবং ‘ইয়াজ’ ২০০৭ সালে বাজারে আসে। বাজারজাত হওয়ার পরপরই পিল দুটো কানাডার নারীদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। কিন্তু নানা বয়সের বিপুলসংখ্যক নারী ‘ব্লাড ক্লট’সহ নানা ধরনের স্বাস্থ্যগত জটিলতায় ভূগতে শুরু করলে চিকিৎসকরাও উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। এরই মধ্যে নানা বয়সের নারীদের মৃত্যুর ঘটনা চিকিৎসকদের উদ্বেগ আরো বাড়িয়ে দেয়।
হেলথ কানাডার দলিলে বলা হয়েছে, ২০০৭ সাল থেকে ফেব্রুয়ারি ২০১৩ সাল পর্যন্ত সময়ে চিকিৎসকরা অন্তত ৬০০ পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কথা জানিয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ২৪ জন।

বলা হয়েছে, এসব নারীর মৃত্যুর কারণ হিসেবে ব্লাড ক্লট’কে চিহ্নিত করা হয়েছে। সব ধরনের হরমোনাল জন্মনিরোধক এর সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে ‘ব্লাড ক্লট’ চিহ্নিত হলেও ‘ইয়াজ’ এবং ‘ইয়াসমিন’ এর প্রতিক্রিয়াটা অনেক বেশি। এলিসি এবং নভারিন নামের অপর দুটি জন্ম নিরোধকের প্রতিক্রিয়ায় যথাক্রমে চার এবং দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে ২০১১ সালে হেলথ কানাডার পর্যালোচনায় ‘ইয়াসমিনের’ কারণে ব্লাড ক্লট এর উচ্চ আশংকার কথা তুলে ধরা হয়েছিলো। ইউএস ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের বিশ্লেষণ অনুসারে,’ইয়াসমিন’ ব্র্যান্ডের জন্ম নিরোধকে এমন একটি রাসায়নিক উপকরণ আছে যাতে অন্য যে কোনো পিলের চেয়ে ব্লাড ক্লটের আশংকা ৭৪ শতাংশ বেশি।

তবে বেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি তাদের জনপ্রিয় দুটি ব্র্যান্ডের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে। কোম্পানিটির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সারা বিশ্বে জন্মরোধক এই পিলটি নিয়মিত পর্যবেক্ষণে রয়েছে। নির্দেশিত পন্থায় সেবনে এর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বা ঝুঁকি নেই।

(কানাডা থেকে প্রকাশিত নতুনদেশ ডটকম থেকে সংগৃহীত)

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.