এই দেশ কী শরীয়া আইনে চলছে?

safe_imageজহিরুল হক বাপী: ভাবছি কাল বগুড়ার মেয়েগুলোর কথা, সারারাত কেটেছে অস্বস্তিতে, এখনও কাটেনি সেই অস্বস্তির ভাব।

বাংলাদেশের খেলা নিয়ে খুশির জোয়ার চলছে। মাহমুদুল্লাহর সেঞ্চুরি খেলায়, স্বপ্নে, আশায় নতুন মাত্রা দিয়েছে। কিন্তু আমি স্বস্তিতে নেই। সারারাত কেটেছে অস্বস্তিতে, এখনও তা। ভাবছি কাল বগুড়ার মেয়েগুলোর কথা । তারা পারিবারিক, সামাজিক ভাবে কি পরিমাণ হেনস্থা  হচ্ছে?!!
আমার ছোট বোন প্রেম করতো । পরে পারিবারিক ভাবেই বিয়ে। কিন্তু এ বিয়েতে মাকে রাজী করাতে নাকের পানি আর কপালের ঘামের মিকচার । প্রেম করাটাই অপরাধ ছিল বোনের। সেই জায়গায় পার্কে বন্ধু, সহপাঠী, প্রেমিকের সাথে দিনের আলোতে এমন কালি মেখে আবার তা ভিডিও করে নেটে ছেড়ে দেওয়ার পর এ মেয়েগুলি কি পরিমাণ গঞ্জনার মুখোমুখি হচ্ছে?!! হবে?!
কেউ কি দেখার নেই?

এত বড় নারী নির্যাতন, সংবিধান লঙ্ঘন, ক্ষমতার অপব্যবহার করার পরও এখন পর্যন্ত বগুড়ার ঐ ম্যাজিস্ট্রেটের নামে কোন আইনানুগ ব্যাবস্থা নেওয়া হলো না!!!

কেন? এ দেশ কি শরীয়া আইনে চলছে? এ দেশ কি আইএস এর ? আইএস/তালেবান/আল-কায়াদারা তো এমন সমাজ চায়। আমরা কী তাহলে সেই পথেই এগোচ্ছি? বগুড়ার ম্যাজিস্ট্রেট যদি জঙ্গীদের মত অস্ত্রও ধরতো যদি সুবিধা পেত। এই ম্যাজিস্ট্রেটের মনোভাব এবং বডি ল্যাঙ্গুয়েজ পুরোটাই জঙ্গীদের মত।

এরে রিমান্ডে নিলে অনেক তথ্য, ষড়যন্ত্র বের হওয়ার কথা স্বাভাবিকভাবেই । বগুড়ায় আওয়ামী লীগ কর্মী, স্বাধীনতা পন্থী এ পর্যন্ত ( গত দুবছরে ) খুন হয়েছে ১০০ জনের কাছাকাছি। এ সব খুনে যে সব অস্ত্র ব্যবহার হয়েছে পুলিশ যদি ঐ ম্যাজিস্ট্রেটকে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারে বের হয়, কিছু না কিছু পাওয়া যাবেই।

নাকি আমরা অপেক্ষা করবো ঐ ম্যাজিস্ট্রেটের  “ভি” সাইন দেখার জন্য অথবা আমি যা করছি ঠিক করছি, তোমরা আমার কিছুই করতে পারবা না, এই বাণী শোনার জন্য?

আমার ভালো লাগছে না । মেয়েগুলোর কথা, ছেলেগুলোর কথা চিন্তা করে। অনেক মেয়েই এখন শিক্ষক, শিক্ষিকা এমন কি ইভ টিজারদের দ্বারা কটু কথা শুনবে।

(ফেসবুক থেকে)

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.