বর অজ্ঞান, অন্যকে বিয়ে করলো কনে

Marriageউইমেন চ্যাপ্টার: মালাবদল পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল। কিন্তু মালাবদলের জন্য হাত বাড়ানো মাত্রই সবার সামনেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান বর। আর তখনই পাত্রী জানতে পারলেন যে তার হবু স্বামী মৃগী রোগী। এতেই বেঁকে বসেন তিনি। অজ্ঞান বরকে নিয়ে যখন সবাই ছুটছে চিকিৎসকের কাছে, তখন বোন জামাইয়ের ভাইকে বিয়ের প্রস্তাব দেন কনে, ওই যুবকও রাজী হয়ে যান। ব্যস, বিয়ে হয়ে যায় নতুন বর-কনের।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশের মোরাদাবাদে। টাইমস অব ইন্ডিয়ার বরাত দিয়ে বিবিসি বাংলা জানায়, ২৫ বছরের তরুণ যুগল কিশোরের সাথে রামপুরের তেইশ বছরের তরুণী ইন্দিরার বিয়ের প্রস্তুতি চলছিল ভালোভাবেই। আত্মীয়স্বজনরাও উপস্থিত। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতাও বেশ অনেকখানিই সম্পন্ন তখন। মালাবদলের সময়ই ঘটে বিপর্যয়।

মালাবদল করতে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে যান হবুবর। জানা যায়, বর আগে থেকেই মৃগীরোগী। কিন্তু তার অসুস্থতাজনিত সমস্যাটি কনের পরিবারের কাছে গোপন করা হয়েছিল। এটা জানতে পেরে  চরম ক্ষুব্ধ হন তরুণী পাত্রী। সঙ্গে সঙ্গে তিনি তার সিদ্ধান্ত বদল করেন এবং ওই অনুষ্ঠানেই তিনি বিয়ের প্রস্তাব দেন এক আত্মীয়কে। সেই আত্মীয়ও রাজী হলে অত্যন্ত খুশী মনে হরপাল সিং নামে একজনকে বিয়ে করেন ওই তরুণী।

মিস্টার সিং সম্পর্কে তার ভগ্নিপতির ভাই। কনের প্রস্তাবে প্রথমে অপ্রস্তুত হলেও মিস্টার সিং হাসিমুখেই ইন্দিরাকে বউ করে নেন। এরই মধ্যে ডাক্তারের কাছে নেয়ার পর জ্ঞান ফিরে এলে কিশোর আবার ওই অনুষ্ঠানে আসেন। কিন্তু ততক্ষণে তার হবু-স্ত্রী অন্যের হয়ে গেছে।

এদিকে ইন্দিরার এমন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ কিশোর এবং তার আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। একপর্যায়ে সংঘর্ষ বেধে যায়, চামচ, প্লেট, ডিশ নিয়ে একে-অপরের দিকে ছুঁড়ে মারে।

কিন্তু সব প্রচেষ্টাই ব্যর্থ হয়ে যায় ইন্দিরার দৃঢ়তার কাছে। পরে কিশোর আর তার পরিবার মোরাদাবাদে ফিরে যায়।

 

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.