আমাদের রুনী আপা

rUNI uRMIইশরাত জাহান ঊর্মি: আহা রুনী আপা, পেন্সিলে আঁকা তোমার স্মৃতির উপর রবার ঘষা শুরু হয়ে গেছে সেই কবেই। শুধু ১১ ফেব্রুয়ারি এলে স্মৃতির পাতা খুলে বসা। টিপিক্যাল বাঙালী। আমিও তো তার বাইরে নই।

তোমার সাথে প্রথম দেখা যুগান্তরে। আমরা তখন তরুণ তুর্কি। উড়ে বেড়াই, ঘুরে বেড়াই। জীবন তখন কত নতুন, কত রঙীন স্বপ্নের ওড়াওড়ি। তুমি সাগর ভাইয়ের সাথে প্রেম করছো। সারাক্ষণ খুনসুটি, স্বপ্ন সাজানো।

তুমি যুগান্তর ছেড়ে চ্যানেল আই, তারপর এটিএন বাংলা মাঝখানে বিয়ে, সন্তান, বিদেশবাস। তোমাকে একইরকম দেখেছি। হাসি, আনন্দ, ছবি তোলা, পিকনিকে যাওয়া, বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেওয়া। দেখা হতো এসাইনমেন্টে, গল্প হতো, একসাথে চা খাওয়া, স্বামী-শাশুড়ীর নাম-বদনাম, পরচর্চা-পরনিন্দা-সবাই যা করে আমরাও তাই করতাম।

২০০৯ সালে আমরা একসাথে অ্যামেরিকা গেলাম। একটা ওয়ার্কশপে। এয়ারপোর্টে তোমার ভাইয়ের সাথে মেঘ এলো তোমায় ছাড়তে। তিনবছরের বাচ্চা তখন ও। খুব কাঁদছিল যাওয়ার সময়। তারপর পুরোটা পথ তুমি হেসেছো, কথা বলেছো আর থেকে থেকে অন্যমনস্ক হয়ে গেছো। দুবাইতে নীল শার্ট আর কাপ্রি পড়া তোমার বিষন্ন মুখটি এখনও আমার চোখে ভাসে।

আমরা একরুমে ছিলাম। তোমাকে দেখতাম, ওয়ার্কশপ শেষে রুমে ফিরেই তুমি দৌড়ে ল্যাপটপ খুলে বসতে। ফেসবুকে তখন দারুণ নেশা তোমার। আমরা কথা বলতাম, বিষয় সেই একই। স্বামী, সংসার, অফিসের বঞ্চনা, কোন কোন সহকর্মীর শঠতা।

একদিন ওয়ালমার্টে শপিং করা নিয়ে কি একটা কারণে যেন তোমার সাথে ঝগড়াও হয়ে গেল। পরে আবার সব ঠিকঠাক। একদিন কি যত্নে ওয়ালমার্ট থেকে নতুন কেনা স্ট্রেটনার দিয়ে আমার চুল আয়রন করে দিলে। আমি কিন্তু কোথাও কোন অস্বাভাবাকিতা দেখিনি ১৫ দিনে। তুমি একদিন বাসায় ফোন করে তোমার মায়ের সাথে খুব রাগারাগি করছিলে, মেঘের সাথে কথা না বলতে পেরে। সাগর ভাই তখন জার্মানীতে।

তোমার মধ্যে আমি আমাকেই দেখেছি। সহজ, স্বাভাবিক, সাধারণ, অভিমানী, সামান্য ঈর্ষাকাতর, একটু রাগী আর মানুষের জন্য ভালোবাসা। খুব আলাদা বা শত্রু তৈরি হওয়ার মতো কোন চরিত্র তো তুমি ছিলে না! তারপরও তোমাকে এইভাবে কেন মরতে হলো, সেই প্রশ্নের উত্তর আর কোনদিনই জানা হবে না, তাই না?

কত কি বানিয়ে নিয়েছে মানুষ!- পরকীয়া, রাষ্ট্রের চক্রান্ত, অনৈতিক জীবন-যাপন ইত্যাদি ইত্যাদি। এখন আমাদের সত্যটা জানার আগ্রহও যেন আর নেই। এই বঙ্গদেশে শত শত হাজার হাজার লাশের নীচে তোমার লাশের রহস্য ইতিমধ্যে চাপা পড়ে গেছে রুনী আপা। আমাদের রুনী আপা………।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.