বিমানে তরুণীকে উত্যক্ত করে ক্ষমা প্রার্থনা

We can do itউইমেন চ্যাপ্টার: ভারতে একটি বিমানের ভেতর এক তরুণীকে উত্যক্ত করার ঘটনায় ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ব্যাপকভাবে শেয়ার হতে দেখা গেছে। সাম্প্রতিক সময়ে ভারতে যৌন নির্যাতনের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় ওই তরুণীর এই প্রতিবাদ সমাদৃতও হচ্ছে নানা মহলে।

জানা গেছে, এয়ার ইন্ডিগোর ভুবনেশ্বরগামী একটি ফ্লাইটে এক প্রৌঢ় যাত্রী সামনের আসনে বসােএক তরুণীকে নানাভাবে উত্যক্ত করার পর মেয়েটি প্রতিবাদ করে উঠলে পুরো বিমানের লোকজন মেয়েটির পক্ষ নেয়। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে ওই ব্যক্তি মাফ চাইলেও মেয়েটি এফআইআর করে তার নামে। অবশ্য কিছুক্ষণ পরই ওই ব্যক্তি ছাড়া পেয়ে যায়।

এই ঘটনাটি ঘটে গত ২৭শে জানুয়ারি।  বিমানে ৬০ বছর বয়সী শিল্পপতি রবীন্দ্র ঝুনঝুনওয়ালার আসন ছিল ঝাড়খন্ডের এক তরুণীর পিছনের সিটে। বিমান যখন মাঝ-আকাশে, তখন ওই ব্যক্তি বার বার ইচ্ছে করে ওই তরুণীর শরীরে হাত দিতে থাকেন বলে মেয়েটির অভিযোগ। এমন কী তিনি গোপনে তার শরীরের নানা অংশ খামচে ধরেন বলেও ওই তরুণী পরে জানান।

তরুণীটি জানায়, প্রথমে সে কি হচ্ছে তা বুঝতে সময় নেয়। পরে এই ঘটনা তিনি নীরবে হজম করে যেতে রাজি হননি – একটা পর্যায়ে বিমানের ভেতরেই তিনি প্রতিবাদে ফেটে পড়েন, নিজের মোবাইল ফোনের ক্যামেরা অন করে তিনি ওই ব্যক্তির উদ্দেশে বলতে থাকেন, ‘একজন মেয়ে বলে আপনি যা খুশি করে যাবেন, যেখানে ইচ্ছে হাত দেবেন – আর ভেবেছেন আমরা চুপ করে থাকব?’

মোবাইলে ধারণকৃত ভিডিও-তে পরে দেখা গেছে, ওই ব্যক্তি ভয়ে প্রায় সেঁটিয়ে গিয়ে মাথায় হাত দিয়ে বসে আছেন – আর খুব মিনমিন করে ক্ষমা করে দেওয়ার কথা বলছেন। প্রতিবাদী তরুণী অবশ্য সঙ্গে সঙ্গেই বলেন ‘কীসের ক্ষমা’?

বিবিসি বাংলার খবরে বলা হয়, প্লেনটি অবতরণের পর যাত্রীরা যখন লাগেজের জন্য অপেক্ষা করছেন, তখন ওই তরুণী আবার ওই ব্যক্তিকে চার্জ করেন – যার জবাবে তাঁকে বলতে শোনা যায় ‘সবারই ভুল হয়, আমারও একটা ‘বিরাট ভুল’ হয়ে গেছে’। প্রৌঢ় ওই ব্যবসায়ী এ কথাও জানান যে, তাঁর পরিবারে তাঁর নিজেরও একটি মেয়ে আছে। তরুণীটি তার জবাবে বলে, ‘ওই মেয়েটির কথা ভেবে সত্যিই আমার দু:খ হচ্ছে – যে আপনি ওর বাবা!’

মোট মিনিট-চারেকের এই দুটি ভিডিও ওই তরুণী পরে ফেসবুকে আপলোড করলে তা নিমেষে ভাইরাল হয়ে যায় – মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে লক্ষাধিক মানুষ সোশ্যাল মিডিয়া বা ইউটিউবে ভিডিওগুলো দেখে ফেলেন।

পরে ওই তরুণীর অভিযোগের ভিত্তিতে ভুবনেশ্বরের পুলিশ রবীন্দ্র ঝুনঝুনওয়ালাকে গ্রেফতারও করে – যদিও অতি অল্প সময় পরেই তিনি জামিন পেয়ে যান।

শহরের পুলিশ কমিশনার আর পি শর্মা জানান, এটা জামিনযোগ্য অপরাধ বলেই পুলিশ অভিযুক্তকে বেশিক্ষণ নিজেদের হেফাজতে রাখতে পারেনি।

শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.